বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > মিড–ডে মিল প্রকল্পে দু’‌হাজার কোটি বরাদ্দ কেন্দ্রের, খারিজ শুভেন্দুর অভিযোগ

মিড–ডে মিল প্রকল্পে দু’‌হাজার কোটি বরাদ্দ কেন্দ্রের, খারিজ শুভেন্দুর অভিযোগ

শুভেন্দু অধিকারী-ব্রাত্য বসু

মিড–ডে মিল নিয়ে নানা অভিযোগ বিরোধীরা তুলেছে। মিড–ডে মিলে ‘দুর্নীতি’ হয়েছে, অভিযোগ তোলা হয়েছিল। কেন্দ্রীয় প্রতিনিধিদের দেওয়া রিপোর্টে মিড–ডে মিলে ১০০ কোটি টাকার দুর্নীতির উল্লেখ করা হয়। যদিও সেই রিপোর্টে সইও ছিল না রাজ্যের প্রতিনিধির। প্রকল্পের টাকা আটকে দেওয়া হয়। রাজ্যের ভূয়সী প্রশংসা করে কেন্দ্র।

পিএম পোষণ (মিড ডে মিল) প্রকল্পে পশ্চিমবঙ্গ–সহ সমস্ত রাজ্যের জন্য ২ হাজার কোটি টাকা মঞ্জুর করল কেন্দ্রীয় সরকার। মিড–ডে মিলে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধানকে চিঠি দিয়েছিলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তখনই বিষয়টি খতিয়ে দেখতে রাজ্যে আসে কেন্দ্রের যৌথ পর্যালোচনা মিশন। এই প্রকল্পের পোশাকি নাম, পিএম পোষণ। কিন্তু কেন্দ্র যেমন প্রশ্ন সহকারে রিপোর্ট চেয়েছিল তার জবাব দিয়েছিল রাজ্য। এমনকী বৈঠকে বসে সমস্ত তথ্য তুলে ধরা হয়। আর তারপরই শুভেন্দু অধিকারীর তোলা অভিযোগ কার্যত খারিজ করে দিয়ে দু’‌হাজার কোটি বরাদ্দ করল কেন্দ্রীয় সরকার।

এদিকে এই বিষয়টি নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু টুইট করেন। রাজ্যে মিড–ডে মিলের ব্যবস্থার ভূয়সী প্রশংসা করেছে কেন্দ্রীয় সরকার বলে তিনি জানিয়েছেন। তিনি টুইটে জানান, এদিন বিভিন্ন রাজ্যের সঙ্গে পিএম পোষণ প্রকল্পের ‘প্রজেক্ট অ্যাপ্রুভাল বোর্ড’ বৈঠকে বসে। এই রাজ্যের স্কুলশিক্ষা দফতর একটি প্রেজেন্টেশন পেশ করে। কেন্দ্রীয় সরকারের অফিসাররা বিভিন্ন রাজ্যের উপস্থাপনায় সন্তোষ প্রকাশ করেন। রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী কারও নাম না নিয়ে বিরোধীদের কটাক্ষ করেন। এই রাজ্যের ভূয়সী প্রশংসা করে কেন্দ্র। তারপরই ২০২৩–২৪ অর্থবর্ষে ২০০০ কোটি টাকা বরাদ্দের কথা ঘোষণা করা হয় বলে জানান ব্রাত্য বসু।

ঠিক কী লিখেছেন শিক্ষামন্ত্রী?‌ মিড–ডে মিল নিয়ে নানা অভিযোগ বিরোধীরা তুলেছে। মিড–ডে মিলে ‘দুর্নীতি’ হয়েছে বলে অভিযোগ তোলা হয়েছিল। কেন্দ্রীয় প্রতিনিধিদের দেওয়া রিপোর্টে মিড–ডে মিলে ১০০ কোটি টাকার দুর্নীতির উল্লেখ করা হয়। যদিও সেই রিপোর্টে সইও ছিল না রাজ্যের প্রতিনিধির। যার জেরে প্রকল্পের টাকা আটকেও দেওয়া হয়। আর তারপরই এই ঘটনা ঘটলে টুইটে ব্রাত্য বসু লেখেন, ‘‌কেন্দ্রের অর্থ অনুমোদন থেকে পরিষ্কার হল উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে রাজ্যের মিড–ডে মিল নিয়ে রাজনৈতিক ফায়দা তোলার চেষ্টা হচ্ছে।’‌ অর্থাৎ নাম না করে তির ছুঁড়েছেন শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে। তিনিই শিশুদের মুখের খাবার কেড়ে নিতে চেয়েছিলেন এই ঘটনা থেকে তা পরিষ্কার করে দিয়েছেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী।

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ রাজ্যের মিড–ডে মিলে অভিনবত্ব আনা হয়েছিল। বারবার কেন্দ্রীয় সরকারকে রিপোর্ট পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু জট কিছুতেই কাটছিল না। এই বিষয়ে এবার টুইটে রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু লেখেন, ‘‌রাজ্য সরকার জানিয়েছিল বিভিন্ন স্তরে স্কুলে এনরোল করা পড়ুয়াদের গড়ে ৯৫ শতাংশকে মিড–ডে মিল দেওয়া হয়। কিন্তু দেখা গিয়েছে, স্কুলগুলিতে মাত্র ৬০ থেকে ৮৫ শতাংশ পড়ুয়া প্রতি বছরে এই মিড–ডে মিল নেয়। এমনকী প্রায় ১৫ কোটি মিল বেশি দেওয়া করা হয়েছে বলে দেখানো হয়। আর তাতেই খরচ হয়ে গিয়েছে ১০০ কোটি টাকার বেশি। এতেই প্রমাণ হয় যে, রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে পরিকল্পনামাফিক যৌথ পর্যালোচনা মিশনের রিপোর্ট নিয়ে হইচই করা হয়েছিল।’‌

বাংলার মুখ খবর
বন্ধ করুন

Latest News

গায়িকা প্রশ্মিতার সঙ্গে তৃতীয়বার বিয়ের পিঁড়িতে, কে ছিলেন অনুপমের প্রথম স্ত্রী? ‘গগনযান’-র জন্য এই ৪ মহাকাশচারীকে বেছে নিল ভারত, প্রথমবার মহাকাশে পাঠাবে মানুষ বউ ডোনার কোলে ছোট্ট সৌরভ! দাদাগিরি ১০ এ এমন অবাস্তব ঘটনা ঘটল কীভাবে? বন দফতরের বিট অফিসারকে আটকে রাখল গ্রামবাসীরা, গজরাজের হানায় মৃত্যুর জের প্রায় এক বছর পরে ১৬ জনকে গ্রেফতার করল এনআইএ, রামনবমীতে হিংসার জের টেস্টের সেরা ১১-য় অনিশ্চিত জেনেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিলেন কিউয়ি পেসার মুম্বই গিয়ে ডেটিং অ্যাপের ফাঁদে প্রিয়াঙ্কা! দিদি নম্বর ওয়ানে এসে বললেন কী? সফল হয়েছে গোড়ালির অস্ত্রোপচার, হাসপাতালের বিছানায় শুয়েই নিজেই আপডেট দিলেন শামি কলকাতায় একসময় পড়াশোনা করতেন, থাকতেন, ফের একবার এই শহরে ফিরলেন বিদ্যুৎ জামওয়াল দ্বিতীয় ইনিংসে কঠিন সময়ে ধ্রুব জুরেলকে কী উপদেশ দিয়েছিলেন, খোলসা করলেন শুভমন

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.