বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > অনলাইনে বই কিনতে গিয়ে গায়েব ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের টাকা! অভিনব কায়দায় প্রতারণা
সাইবার প্রতারণা। প্রতীকী ছবি।

অনলাইনে বই কিনতে গিয়ে গায়েব ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের টাকা! অভিনব কায়দায় প্রতারণা

  • চলতি মাসের গোড়ার দিকে তিনি ছেলের জন্য অনলাইনে বই কিনতে চেয়েছিলেন।

দু'বছর করোনা পরিস্থিতি থাকার ফলে অনলাইনে লেনদেন বেড়েছে। আর যার ফলে অনলাইনে প্রতারণা বা সাইবার প্রতারণা বহুগুণে বেড়ে গিয়েছে। এর জন্যে নিত্য নতুন পন্থা অবলম্বন করছে প্রতারকরা। এবার অভিনব পদ্ধতিতে প্রতারণার অভিযোগ উঠল। বই কেনার নামে এক ব্যক্তির ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ফাঁকা করে দেওয়ার অভিযোগ উঠল। ১ লক্ষ ১৯ হাজার টাকা প্রতারণার অভিযোগ উঠল।

লালবাজার সূত্রে জানা গিয়েছে, অভিযোগকারীর নাম সঞ্জীব সরকার। তিনি বিধাননগরের বাসিন্দা। চলতি মাসের গোড়ার দিকে তিনি ছেলের জন্য অনলাইনে বই কিনতে চেয়েছিলেন। ইন্টারনেট থেকে কলেজ স্ট্রিটের একটি বইয়ের দোকানের নম্বর পান এবং তারপর ফোনে সেই দোকানের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। ওই নম্বরে বাড়িতে বইয়ের ডেলিভারি চান সঞ্জীব বাবু। এরপর ওই দোকানের পক্ষ থেকে বই ডেলিভারি দেওয়ার জন্য আশ্বস্ত করা হয়। তবে এর জন্য অগ্রিম টাকা দেওয়ার দিতে বলা হয় ওই ব্যক্তিকে। দোকানের ওই প্রস্তাবে রাজি হয়ে যান সঞ্জীব বাবু। এরপর তাকে ওই দোকানের পক্ষ থেকে ফোনে একটি লিঙ্ক পাঠানো হয়। তাপরেই ঘটে বিপত্তি। লিঙ্কে ক্লিক করে নিজের ক্রেডিট কার্ডের যাবতীয় তথ্য শেয়ার করতেই তার কার্ড থেকে খরচ হয়ে যায় ওই পরিমাণ টাকা। ঘটনায় ভয় পেয়ে যান সঞ্জীব বাবু। এরপর তিনি বইয়ের দোকানের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেন। কিন্তু যোগাযোগ করতে পারেনি।

দেরি না করে তিনি কলকাতার সাইবার ক্রাইম থানায় যোগাযোগ করেন। পুলিশ তদন্ত করে জানতে পারে যে একটি নামী বেসরকারি সংস্থার অনলাইন বিপণিতে ওই টাকা খরচ করা হয়েছে। প্রতারক ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা গায়েব করে দিয়ে ওই বিপণনি সংস্থায় বিভিন্ন জিনিসপত্র অর্ডার করেছিল। বিষয়টি জানতে পেরে পুলিশ সেই সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ করে প্রতারকের অর্ডার করা যাবতীয় ডেলিভারি আটকে দেয়। সেইসঙ্গে অভিযোগকারীর টাকাও তার অ্যাকাউন্টে ফিরিয়ে দেয়। এ ঘটনায় অভিযুক্তকে গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ।

বন্ধ করুন