বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > মহালয়ার দিন দেশ থেকে শুরু হবে মৌসুমি বায়ু প্রত্যাহার, জানাল মৌসম ভবন
প্রতীকি ছবি (HT_PRINT)
প্রতীকি ছবি (HT_PRINT)

মহালয়ার দিন দেশ থেকে শুরু হবে মৌসুমি বায়ু প্রত্যাহার, জানাল মৌসম ভবন

  • ঝড়টি উপকূলে আঘাত করার পর রাজস্থান সংলগ্ন এলাকায় বায়ুমণ্ডলের উপরের স্তরে তৈরি হবে একটি প্রতি ঘূর্ণাবর্ত। যার জেরে সেখানে শুষ্ক আবহাওয়ার সৃষ্টি হবে। এর জেরেই শুরু হবে মৌসুমি বায়ু প্রত্যাহারের প্রক্রিয়া।

অবশেষে দেশ থেকে মৌসুমি বায়ু প্রত্যাহারের পূর্বাভাস জারি করল আবহাওয়া দফতর। মৌসম ভবনের তরফে জানানো হয়েছে ৬ অক্টোবর উত্তর-পশ্চিম ভারত থেকে মৌসুমিবায়ু প্রত্যাহার শুরু হতে পারে। অর্থাৎ পুুজোর আগে পশ্চিমবঙ্গ থেকে মৌসুমিবায়ু প্রত্যাহারের সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

মৌসম ভবনের তরফে প্রকাশিত পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে, ঘূর্ণিঝড় গুলাব বর্তমানে নিম্নচাপের আকারে গুজরাটের কাছে উত্তর আরব সাগরে অবস্থান করছে। ক্রমশ শক্তি সঞ্চয় করে এই নিম্নচাপ ফের ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নিতে পারে। ঝড়টি উপকূলে আঘাত করার পর রাজস্থান সংলগ্ন এলাকায় বায়ুমণ্ডলের উপরের স্তরে তৈরি হবে একটি প্রতি ঘূর্ণাবর্ত। যার জেরে সেখানে শুষ্ক আবহাওয়ার সৃষ্টি হবে। এর জেরেই শুরু হবে মৌসুমি বায়ু প্রত্যাহারের প্রক্রিয়া। ৬ অক্টোবর উত্তর – পশ্চিম ভারতের কিছু জায়গা থেকে মৌসুমিবায়ু বিদায় নিতে পারে বলে জানিয়েছে তারা। পূর্বাভাস মেনে এবছর স্বাভাবিক বৃষ্টি হয়েছে বর্ষায়। স্বাভিকের ৯৯ শতাংশ বৃষ্টি হয়েছে দেশজুড়ে।

সাধারণত ১৭ সেপ্টেম্বর মৌসুমি বায়ু প্রত্যাহারের প্রক্রিয়া শুরু হয়। পূর্বাভাস মিলে গেলে এবার ১৮ দিন পর শুরু হচ্ছে বর্ষা প্রত্যাহারের প্রক্রিয়া। তবে এবার পুজোর আগে পশ্চিমবঙ্গ থেকে মৌসুমি বায়ু প্রত্যাহারের সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। কারণ ১১ অক্টোবর ষষ্ঠী। ৫ দিনের মধ্যে গোটা উত্তর ভারত থেকে মৌসুমি বায়ু প্রত্যাহারের নজির খুব কম।

 

বন্ধ করুন