বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > প্রবীণের বাড়িতে নবীন অভিষেক, আশীর্বাদ থেকে পরামর্শ নিয়েই শুরু পথ চলা
পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে যান তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।
পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে যান তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রবীণের বাড়িতে নবীন অভিষেক, আশীর্বাদ থেকে পরামর্শ নিয়েই শুরু পথ চলা

  • পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে যান তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

দলের অন্দরে অনেকেই ভেবেছিলেন অভিষেক শীর্ষ পদে বসলে প্রবীণরা সম্মান পাবেন না। আজ সেই ধারণা ভেঙে দিলেন স্বয়ং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ই। তিনি এখন তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক। আর রবিবার নিজেকে আরও বিনয়ী এবং নতজানু করলেন ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ। রবিবার আশীর্বাদ নিতে গেলেন দলের মহাসচিবের বাড়িতে। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে যান তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। কাজে নামার আগে তাঁর এই কর্তব্যবোধ আসলে দলের মধ্যে নবীন–প্রবীণ ভারসাম্য বজায়ের পক্ষে তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

এদিন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নাকতলার বাড়িতে যান তৃণমূল কংগ্রেসের সদ্য দায়িত্বপ্রাপ্ত নতুন সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক। নতুন দায়িত্ব পাওয়ার পর আশীর্বাদ নিতে পার্থর বাড়িতে যান তিনি। এমনকী কিভাবে শুরু করবেন তার পরামর্শও গ্রহণ করেন তিনি। জানা গিয়েছে, দলের অনেক প্রবীণ নেতারও আশীর্বাদ নিতে চান অভিষেক।

শনিবার যখন এই দায়িত্ব তাঁকে দেওয়া হয় তখনও বিনয়ের সঙ্গে টুইট করেন তিনি। কথা দেন, সবাইকে নিয়ে চলার চেষ্টা করবেন। গোটা দেশে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাজ ছড়িয়ে দেবেন। আর আজ সেই কাজের শুরুতেই নিজেকে মেলে ধরলেন সাধারণ হিসাবেই। নিজেকে তুলে ধরলেন বাংলার নেতা হিসাবে। তাই এই সৌজন্য। এটা বাংলার সংস্কৃতি। দলের মধ্যে অভিষেক তুলনায় নবীন। কিন্তু ক্ষমতা বাড়লেও প্রবীণদের সম্মান দিলেন তিনি। আবার দলের নতুন কমিটিতে রয়েছেন অনেক নবাগত। যাঁরা আজকে অভিষেকের আচরণ দেখে শিক্ষা নেবেন। বিধানসভা নির্বাচনের আগেও এই কাজটা করেছিলেন অভিষেক। প্রবীণদের পাশাপাশি তিনি নবীনদের এগিয়ে দিয়ে ছিলেন ফ্রন্টে। তবে রবিবার পার্থ–অভিষেক সাক্ষাৎ যথেষ্ট ‘তাৎপর্যপূর্ণ’ বলে মনে করা হচ্ছে।

বন্ধ করুন