বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > শুভেন্দুর নারদা ফুটেজ উধাও, বিজেপি’কে ‘ওয়াশিং মেশিন’ তত্ত্বে খোঁচা তৃণমূলের
ইউটিউব থেকে নারদা দুর্নীতি সংক্রান্ত শুভেন্দু অধিকারীর সমস্ত ফুটেজ মুছে দেওয়া হল।
ইউটিউব থেকে নারদা দুর্নীতি সংক্রান্ত শুভেন্দু অধিকারীর সমস্ত ফুটেজ মুছে দেওয়া হল।

শুভেন্দুর নারদা ফুটেজ উধাও, বিজেপি’কে ‘ওয়াশিং মেশিন’ তত্ত্বে খোঁচা তৃণমূলের

  • তৃণমূল নেত্রী ডক্টর শশী পাঁজা বলেন, ‘আমরা তো বলিই, বিজেপি-তে একটা ওয়াশিং মেশিন আছে। সেখানে গেলে সকলের সব পাপ সব দোষ ধুয়েমুছে সাফ হয়ে যায়।’

শনিবার অমিত শাহের উপস্থিতিতে যোগ দিয়েছেন বিজেপি-তে। এর পরেই ইউটিউব (YouTube) থেকে নারদা দুর্নীতি (Narada scam) সংক্রান্ত শুভেন্দু অধিকারীর সমস্ত ফুটেজ মুছে দেওয়া হল। 

দল বদলের সঙ্গে সঙ্গে এ হেন ঘটনায় স্বভাবতই অভিযোগের আঙুল উঠেছে বিজেপি'র (BJP) দিকে। কিন্তু পদ্ম শিবিরের দাবি, এই বিষয়ে তাঁরা কিছু জানেন না। ঘটনাটি নিছক কাকতালীয় নয়, এমনই মনে করছে তৃণমূল (TMC) নেতৃত্ব।

সোমবার এই বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে পশ্চিমবঙ্গের মন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী ডক্টর শশী পাঁজা বলেন, ‘আমরা তো বলিই, বিজেপি-তে একটা ওয়াশিং মেশিন আছে। সেখানে গেলে সকলের সব পাপ সব দোষ ধুয়েমুছে সাফ হয়ে যায়।’

বিজেপি-র তরফে অস্বীকার করা হলেও ওয়াকিবহাল সূত্রের দাবি, দলের আইটি সেল থেকেই শুভেন্দু অধিকারীর নারদা সংক্রান্ত স্টিং অপারেশনের (sting operation) ফুটেজ ইউটিউব থেকে মুছে ফেলা হয়েছে। 

তবে সূত্রে খবর, ইউ টিউব থেকে ফুটেজ মুছে ফেললেও বঙ্গ বিজেপির নিজস্ব ফেসবুক পেজে এখনও রয়ে গিয়েছে শুভেন্দুর সেই বিতর্কিত ভিডিয়ো ফুটেজ। অন্তত সোমবার রাত ৮টা পর্যন্ত সেখানে ফুটেজটি দেখা গিয়েছে। 

প্রসঙ্গত, তৃণমূলের তরফে একাধিক বার অভিযোগ করা হয়েছে, সিবিআই, ইডি-র ভয় দেখিয়ে অনেককে দল বদল করানো হচ্ছে।

নারদা দুর্নীতিতে অভিযুক্ত বেশ কিছু নেতা বিজেপি-তে যাওয়ার চেষ্টা করছেন বলে কিছু দিন আগে অভিযোগ করেছিলেন হুগলির শ্রীরামপুরের তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেছিলেন, ‘যাঁরা সারদা– নারদায় অভিযুক্ত, তাঁরা নিজেদের সিবিআই থেকে বাঁচাতে বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন। এঁরা আগে থেকেই কথা দিয়ে রেখেছিলেন। ভোটের আগে দলবদলের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সিবিআই-এর (CBI) হাত থেকে রক্ষা পেয়েছেন।’ 

উল্লেখ্য, নারদা স্টিং অপারেশন কেন্দ্র করে রাজ্য রাজনীতিতে একদা ঝড় বয়ে গিয়েছিল। ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল রাজ্যের একাধিক রাজনীতিক ও পুলিশ আধিকারিকের বিরুদ্ধে। আদালতে এখনও নারদাকাণ্ড সংক্রান্ত একাধিক মামলা বিচারাধীন রয়েছে।

বন্ধ করুন