বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > সিপিআইএমের সদর দফতরে উড়বে জাতীয় পতাকা, পালিত হবে স্বাধীনতা দিবস
এবার স্ট্র্যাটেজি বদলাচ্ছে সিপিআইএম।
এবার স্ট্র্যাটেজি বদলাচ্ছে সিপিআইএম।

সিপিআইএমের সদর দফতরে উড়বে জাতীয় পতাকা, পালিত হবে স্বাধীনতা দিবস

  • আগামী ১৫ অগস্ট স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে মুজফফর আহমেদ ভবনের ছাদে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিউনিস্ট নেতারা।

বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু কয়েকদিন আগে বলেছিলেন, বিজেপি বিরোধিতায় কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী এবং কচ্ছ থেকে কোহিমা পর্যন্ত সর্বভারতীয় স্তরে যে কোনও দলের সঙ্গে আমরা কাজ করতে রাজি। এই বিজেপি বিরোধিতার এবার স্ট্র্যাটেজি বদলাচ্ছে সিপিআইএম। এই প্রথমবার স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে আলিমুদ্দিনে উড়বে তেরঙ্গা ঝান্ডা বলে সূত্রের খবর। আগামী ১৫ অগস্ট স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে মুজফফর আহমেদ ভবনের ছাদে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিউনিস্ট নেতারা।

কেন এই ঐতিহ্য ভাঙা হচ্ছে?‌ দলীয় সূত্রে খবর, তিনদিনের কেন্দ্রীয় কমিটির ভার্চুয়াল বৈঠকে বঙ্গ নেতাদের পক্ষ থেকে এই পতাকা উত্তোলনের প্রস্তাব দেওয়া হয়। এই প্রস্তাব পেশ করেন সিপিআইএম নেতা সুজন চক্রবর্তী। তাঁর এই প্রস্তাবে কেন্দ্রীয় কমিটি সিলমোহর দিয়েছে। তাই সিপিআইএম রাজ্য কমিটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে, আগামী ১৫ অগস্ট মুজফফর আহমেদ ভবনে পালিত হবে স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠান। একসময় এই কমিউনিস্ট নেতারাই আওয়াজ তুলেছিলেন, ‘‌ইয়ে আজাদি ঝুটা হ্যায়’‌।

তাহলে কী এখন মত পরিবর্তন হয়েছে?‌ এই বিষয়ে সুজন চক্রবর্তী সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘শুধুমাত্র আলিমুদ্দিন নয়, রাজ্যের সর্বত্রই, সমস্ত পার্টি অফিসে পতাকা উত্তোলন করা হবে। এটা স্বাধীনতার ৭৫তম বর্ষ। আমরা প্রতিবছরই উদযাপন করি দিনটি। এবার প্রস্তাব হিসেবে পেশ করা হয়েছিল এবং সেটি গৃহীত হয়েছে।’‌

এখন যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে চাইছে সিপিআইএম। তাই নতুন প্রজন্মের হাতে তুলে দেওয়া হবে জাতীয় পতাকা। তাঁরা এবার সেই পতাকা পার্টি অফিসগুলিতে তুলবে। পালিত হবে স্বাধীনতা দিবস। তার মধ্যে দিয়েই হবে জনসংযোগ। এখন যদি অন্য কোনও পথ ধরা হয় তাহলে আবার বড় ধাক্কা খেতে হতে পারে। তাই বিপ্লবের পথটা একটু বদলে নেওয়া হলো বলে মনে করছেন রাজনৈতিক কুশীলবরা।

বন্ধ করুন