বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > NEP 2020: ১০০ বছর পিছু হঠল ভারত, দাবি বাংলার ক্ষুব্ধ অধ্যাপকদের
নতুন জাতীয় শিক্ষা নীতির সমালোচনা করলেন কলকাতা ও যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকরা। 
নতুন জাতীয় শিক্ষা নীতির সমালোচনা করলেন কলকাতা ও যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকরা। 

NEP 2020: ১০০ বছর পিছু হঠল ভারত, দাবি বাংলার ক্ষুব্ধ অধ্যাপকদের

  • প্রচলিত সামগ্রিক, গণতান্ত্রিক ও প্রগতিশীল ভারতের ধারণার বদলে সংকীর্ণ, বৈষম্যমূলক এবং রক্ষণশীল মতবাদ প্রতিষ্ঠা করার প্রয়াস।

নতুন জাতীয় শিক্ষা নীতির তীব্র সমালোচনা করলেন কলকাতা ও যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকরা। তাঁদের দাবি, HECI গঠনের মাধ্যমে শিক্ষা ক্ষেত্রে রাজ্যের গুরুত্ব বিলোপ করার চেষ্টা করেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

বুধবার কেন্দ্রীয় সরকারের ঘোষণার পরে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সংখ্যায়ন চৌধুরী বলেন, ‘এই নীতি সরাসরি যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোর উপর আঘাত কারণ এর জেরে একক কেন্দ্রীয় শিক্ষা নিয়ন্ত্রক সংস্থা HECI গঠন করে রাজ্যের গুরুত্ব গৌণ করা হয়েছে। পাশাপাশি, এই শিক্ষা নীতি উচ্চ শিক্ষায় বেসরকারিকরণ, শিক্ষা ক্ষেত্রে বিদেশি বিনিয়োগের রাস্তা খুলে দিয়েছে এবং অর্থনৈতিক ভাবে পিছিয়ে পড়া ও প্রান্তিক পড়ুয়াদের বাদ দেওয়া হয়েছে।’

তাঁর আরও অভিযোগ, ‘বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে শিক্ষা ও গবেষণা কেন্দ্রে ভাগ করার সিদ্ধান্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল সংজ্ঞার পরিপন্থী, কারণ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা ও গবেষণা হাত ধরাধরি করেই চলে।’

অন্য দিকে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সংগঠনের সভাপতি পার্থ প্রতিম রায় জানিয়েছেন, ‘নতুন শিক্ষা নীতি প্রচলিত সামগ্রিক, গণতান্ত্রিক ও প্রগতিশীল ভারতের ধারণার জায়গায় এক সংকীর্ণ, বৈষম্যমূলক এবং রক্ষণশীল মতবাদ প্রতিষ্ঠা করার প্রয়াস, যা একটি নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দলের বিভাজন নীতির অনুসরণেই তৈরি করা হয়েছে। এই নীতি ভারতীয় শিক্ষা ব্যবস্থাকে একশো বছর পিছিয়ে দিল।’ 

বন্ধ করুন