বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ফোন করেও 'মেলেনি' পরিষেবা, লেকটাউনে 'বিনা চিকিৎসায়' মৃত্যু করোনা আক্রান্তের
কার্যত বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু করোনা আক্রান্তের (ফাইল)
কার্যত বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু করোনা আক্রান্তের (ফাইল)

ফোন করেও 'মেলেনি' পরিষেবা, লেকটাউনে 'বিনা চিকিৎসায়' মৃত্যু করোনা আক্রান্তের

  • জলপাইগুড়ি থেকে লেকটাউন, বদলাচ্ছে না হতাশার ছবি

উত্তরবঙ্গের প্রান্তিক কোনও এলাকা নয়। একেবারে দক্ষিণ দমদমের বুকেই করোনা আক্রান্তের জন্য আ্যাম্বুল্যান্স ও অক্সিজেন না মেলার অভিযোগ। স্থানীয় সূত্রে খবর, দক্ষিণ দমদম পুরসভার লেকটাউন এলাকার বাসিন্দা ৬৫ বছর বয়সী সুনীতি দত্ত। দিন চারেক ধরেই তাঁর হালকা জ্বর ছিল। এরপর পরিবারের লোকজন তাঁর কোভিড পরীক্ষা করান। মঙ্গলবার তাঁর করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। এরপরে বাড়িতেই তাঁর চিকিৎসা চলছিল। দিনের বেলা খাওয়া দাওয়াও করেছিলেন তিনি। কিন্তু মঙ্গলবার রাত থেকে আচমকা শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে শুরু করে। শুরু হয় তীব্র শ্বাসকষ্ট। এবার প্রয়োজনীয় সহায়তা চেয়ে পরিবারের লোকজন বিভিন্ন জায়গায় ফোন করা শুরু করেন। অভিযোগ এরপর থেকেই হয়রানির সেই পরিচিত  অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হন পরিবারের সদস্যরা। একের পর এক হেল্পলাইনে ফোন করেও সহায়তা মেলেনি বলে অভিযোগ। 

পরিবারের দাবি যেখানেই ফোন করা হয়েছে সেখান থেকেই অপর একটি ফোন নম্বর দিয়ে দেওয়া হয়েছে। সেখানে ফোন করার পরে আবার একটি নম্বর। সেখানে কোনওরকমে যোগাযোগ করার পরে আবার একটি নম্বর দেওয়া হয়েছে। শেষপর্যন্ত একটি নম্বরে ফোন করার পরে বলা হয় ফরম পূরণ করতে হবে। কিন্তু তারপরেও অক্সিজেনের সিলিন্ডার, অ্যাম্বুল্যান্স মেলেনি। রাতভর এভাবেই বিভিন্ন জায়গায় যোগাযোগের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয় ওই পরিবার।  এদিকে ততক্ষণে তীব্র শ্বাসকষ্ট চলছে ওই বৃদ্ধার। এরপর ভোর ৫টা ১০ নাগাদ মৃত্যু হয় তাঁর। তবে মৃত্যুর পরেও শেষ হয়নি পরিবারের সদস্যদের ভোগান্তির। বুধবার দুপুর পর্যন্ত বাড়িতেই পড়েছিল দেহ। তবে পুলিশ দেহ সৎকারের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় সহায়তার আশ্বাস দিয়েছে। পরিজনদের দাবি সময়মতো অ্যাম্বুল্যান্স আর অক্সিজেনটা পেলে এত তাড়াতাড়ি হয়তো তাঁকে হারাতে হত না। 

 

বন্ধ করুন