বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > করোনার সময় নাগাড়ে রোগী সেবা, হাসপাতালে ভরতি ফুয়াদ হালিম

হাসপাতালে ভরতি হলেন চিকিৎসক তথা সিপিআই নেতা ফুয়াদ হালিম। রবীন্দ্র সদনের কাছে একটি বেসরকারি হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন তিনি। তবে দু'বারই তাঁর করোনাভাইরাস রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।

বুধবার বিখ্যাত চিকিৎসকের স্ত্রী সায়রা শাহ হালিম একটি টুইটবার্তায় বলেন, 'কোভিডের প্রথম সারির যোদ্ধা হওয়ায় এবং মহামারীর সময় অসংখ্য অভাবী বা দরিদ্র বা অসুস্থ মানুষের দেখভাল করেছেন। আমার স্বামী চিকিৎসক ফুয়াদ হালিমকে বেলভিউয়ের আইসিইউতে ভরতি করা হয়েছে। এই এই মানসিক পরিস্থিতিতে দয়া করে প্রার্থনা করুন।'

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে যখন হাতের কাছে ব্যক্তিগত চেম্বারে চিকিৎসক পাওয়া দুর্বিষহ হয়ে উঠেছিল, সেই সময় এগিয়ে এসেছিলেন ফুয়াদ হালিম। দিশেহারা মানুষের জন্য তাঁর দরজা সর্বক্ষণ খোলা ছিল। চিকিৎসা করেছেন অসংখ্য মানুষের। ‘কলকাতা স্বাস্থ্য সংকল্প' হাসপাতালে মাত্র ৫০ টাকায় ডায়ালিসিস করেছেন। যে সময়ে অধিকাংশ ডায়ালিসিস কেন্দ্র বন্ধ ছিল। গত ২৬ মার্চ থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত হাসপাতালে ২,৩৫৭ জনের ডায়ালিসিস করা হয়েছে।

তারইমধ্যে অসুস্থতার কারণে কয়েকদিন হোম আইসোলেশনে ছিলেন তিনি। দু'বার করোনা রিপোর্টও নেগেটিভ আসে। কিন্তু কিন্তু তিনি সুস্থ হয়ে ওঠেননি। তবে ফুয়াদবাবুর স্ত্রী জানান, নমুনা পরীক্ষার ফল অনুযায়ী চিকিৎসকদের ধারণা তাঁর সার্স বা কোভিড নিউমোনিয়া হয়েছে। এরপর রক্তে কিছু জটিলতার কারণে মঙ্গলবার তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে।

বন্ধ করুন