বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Lake Town Rape case: চাকরি ও বকেয়া বেতন মেটানোর টোপ দিয়ে মহিলাকে ধর্ষণ, গ্রেফতার অভিযুক্ত
লেকটাউনে মহিলাকে ধর্ষণের অভিযোগ। প্রতীকী ছবি।

Lake Town Rape case: চাকরি ও বকেয়া বেতন মেটানোর টোপ দিয়ে মহিলাকে ধর্ষণ, গ্রেফতার অভিযুক্ত

  • পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ঘটনাটি ২০১৪ সালের। ওই মহিলার চাকরির প্রয়োজন থাকায় তাকে একটি স্কুলে চাকরি পাইয়ে দিয়েছিলেন দুর্জয়। কিন্তু, তারপর থেকে দুর্জয় তার সঙ্গে অশালীন আচরণ করতে শুরু করে বলে অভিযোগ।

আর্থিক প্রয়োজনীয়তার সুযোগে চাকরির টোপ এবং বকেয়া বেতন পাইয়ে দেওয়ার নাম করে মহিলাকে একাধিবার ধর্ষণের অভিযোগ উঠল। এই অভিযোগ উঠেছে লেকটাউন থানায়। এর ভিত্তিতে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ধৃতের নাম দুর্জয় সাঁতরা। গতকাল তাকে আদালতে তোলা হলে তার পাঁচ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেয় আদালত। এই অভিযোগের ভিত্তিতে আদালতে গোপন জবানবন্দি দেবেন ওই মহিলা।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ঘটনাটি ২০১৪ সালের। ওই মহিলার চাকরির প্রয়োজন থাকায় তাকে একটি স্কুলে চাকরি পাইয়ে দিয়েছিলেন দুর্জয়। কিন্তু, তারপর থেকে দুর্জয় তার সঙ্গে অশালীন আচরণ করতে শুরু করে বলে অভিযোগ। এরপর ওই মহিলা চাকরি ছেড়ে দেন। ১৫ দিন কাজ করার পরে তিনি আর সেখানে কাজ করেননি। অভিযোগ, সেই ১৫ দিনের বেতন পাইয়ে দেওয়ার জন্য দুর্জয় তাকে বহুবার বেশ কয়েকটি হোটেলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। গতকাল ধৃতকে বিধাননগর আদালতে তোলা হলে সরকারি আইনজীবী তার পুলিশ হেফাজতের আবেদন জানান। মহিলার অভিযোগ, তাকে শুধু ধর্ষণই করা হয়নি, তার কাছ থেকে বেশকিছু গয়নাও নিয়ে নিয়েছিল ওই অভিযুক্ত।

যদিও ধৃতের আইনজীবীর বক্তব্য, ২০১৪ সালে এই ঘটনা ঘটেছিল, অথচ প্রায় ৮ বছর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই মহিলা। তাহলে সেক্ষেত্রে কেন ওই মহিলা এতবছর পুলিশে অভিযোগ জানাননি। মহিলা ব্ল্যাকমেইলের অভিযোগ জানালেও কী ধরনের ব্ল্যাকমেল তাও স্পষ্ট করা হয়নি। ধৃতের আইনজীবীর বক্তব্য, অভিযোগ দায়ের হওয়ার পর তাকে গোপন জবানবন্দির জন্য ডাকা হয়েছিল। কিন্তু, নির্দিষ্ট সময়ে তিনি গোপন জবানবন্দি দেননি। সেক্ষেত্রে অন্য কোনও রহস্য রয়েছে বলেই আইনজীবী দাবি করেছেন।

বন্ধ করুন