বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > রাজ্যপাল–বিরোধী দলনেতা বৈঠক রাজভবনে, জমা পড়তে চলেছে বহু অভিযোগ
শুভেন্দু অধিকারী।
শুভেন্দু অধিকারী।

রাজ্যপাল–বিরোধী দলনেতা বৈঠক রাজভবনে, জমা পড়তে চলেছে বহু অভিযোগ

  • এখন রাজ্যে জ্বলন্ত ইস্যু ইয়াস বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীর না থাকা এবং আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। এই পরিস্থিতিতে বিরোধী দলনেতা–রাজ্যপাল সাক্ষাৎ বেশ তাৎপর্যপূর্ণ।

আজ দুপুর ৩টের সময় রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে দেখা করতে চলেছেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। সে কথা তিনি নিজে টুইট করে জানিয়েছেন। এখন রাজ্যে জ্বলন্ত ইস্যু ইয়াস বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীর না থাকা এবং আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। এই পরিস্থিতিতে বিরোধী দলনেতা–রাজ্যপাল সাক্ষাৎ বেশ তাৎপর্যপূর্ণ। কেন দেখা করতে আসছেন তিনি?‌ কি নিয়ে এই বৈঠক?‌ এই প্রশ্ন এখন রাজ্যবাসীর মনে। তবে বৈঠক থেকে বেরিয়ে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলবেন বলে জানা গিয়েছে।

সূত্রের খবর, শুভেন্দু অধিকারী বিরোধী দলনেতা হলেও শাসকদল তথা রাজ্য সরকার তাঁকে পাত্তা দিচ্ছেন না। এমনকী তিনি বিভিন্ন বিষয়ে মন্তব্য করলেও পাল্টা কেউ জবাব দিচ্ছেন না। ফলে বিরোধী দলনেতা হয়েও কোনও গ্রহণযোগ্যতা মিলছে না। এই নিয়ে তিনি অভিযোগ জানাবেন রাজ্যপালকে। যাতে রাজ্যপাল নির্দেশ দেন বিরোধী দলনেতার পদমর্যাদা অক্ষুন্ন রাখতে হবে। তাছাড়া ইয়াস পর্যালোচনা বৈঠক নিয়েও তিনি কিছু তথ্য দিতে চান রাজ্যপালকে।

আরও জানা গিয়েছে, একসময় আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় পরিবহন সচিব ছিলেন। তখন পরিবহনমন্ত্রী ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। তাই আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় নিয়ে তাঁর কাছে থাকা তথ্য রাজ্যপালকে তুলে দেবেন তিনি। ইতিমধ্যেই আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের শাস্তি দাবি করেছেন শুভেন্দু অধিকারী। দিঘা–সহ পূর্ব মেদিনীপুরের বিভিন্ন এলাকা ঘূর্ণিঝড়ে কতটা বিপর্যস্ত তা নিয়েও রিপোর্ট দেবেন তিনি। রাজ্য সরকার কি কাজ করছে সেখানে, কতটা শুরু হয়েছে তাও তুলে ধরা হবে বলে খবর।

রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ সেখানে জমা করতে পারেন। তারপর সেখান থেকে রাজ্য বিজেপির কার্যালয়ে যাওয়ার কথা তাঁর। কারণ আজ প্রাক্তন বিজেপি রাজ্য সভাপতি তথা পূর্বতন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তপন শিকদারের প্রয়াণ দিবস। সেখানের প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করবেন রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। তিনিও বিরোধী দলনেতা হিসাবে মাল্যদান করবেন বলে খবর মিলেছে।

বন্ধ করুন