বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > কোথায় অক্সিজেন-করোনার ওষুধ-অ্যাম্বুলেন্স-খাবার মিলবে? তথ্যভাণ্ডার শেয়ার পরমের
পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য ফেসবুক)
পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য ফেসবুক)

কোথায় অক্সিজেন-করোনার ওষুধ-অ্যাম্বুলেন্স-খাবার মিলবে? তথ্যভাণ্ডার শেয়ার পরমের

  • করোনা পরিস্থিতিতে এগিয়ে এলেন পরম।

সারাদেশে যেভাবে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি যেভাবে বাড়ছে, তাতে এই সংকটপূর্ণ মুহূর্তে সবকিছুরই একটি পরিসংখ্যানভিত্তিক তথ্যভাণ্ডার থাকা প্রয়োজন। শনিবার টুইট করে এই ভাষাতেই উদ্বেগ প্রকাশ করলেন অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। ইতিমধ্যে দেশের পাশাপাশি রাজ্যেও করোনা আক্রান্তের সংখ্যা উত্তরোত্তর বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে যদি করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় যেসব ব্যবস্থা অত্যন্ত জরুরি তার একটা সঠিক তথ্য থাকা জরুরি বলেই মনে করছেন তিনি।

টুইটে কী ধরনের তথ্যভাণ্ডার থাকা প্রয়োজন, তার একটা নমুনাও দিয়েছেন পরমব্রত। তাঁর মতে, বিভিন্ন হাসপাতালে বেড ও ভেন্টিলেটরের সংখ্যা কত, অক্সিজেন ভাড়া কোথায় কোথায পাওয়া যায় বা সেই সংক্রান্ত তথ্য, অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা কোথায় পাওয়া যায়, রক্তদান সংক্রান্ত তথ্য, টেলিমেডিসিন সংক্রান্ত তথ্য ইত্যাদি নানা তথ্য মানু্ষের জানা দরকার। সেজন্য একটা নির্দিষ্ট অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে তা জানা জরুরি। এই বিষয়ে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, সোশ্যাল মিডিয়ারও একটা ভূমিকা রয়েছে বলে মনে করেন তিনি।

ওয়াকিবহাল মহলের মতে, প্রতিদিনই সংবাদমাধ্যমে দেশে একদিনে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা কত, কতজন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন, কতজনের মৃত্যু হয়েছে, এই সব তথ্য পাওয়া যায়। এই তথ্য যেমন মানুষের কাছে খুবই সহজলভ্য হয়ে গিয়েছে, তেমনই এই সংকটজনক পরিস্থিতিকে কাটিয়ে তুলতে যে পরিকাঠামো ও ব্যবস্থা প্রয়োজন, সেই সংক্রান্ত তথ্য থাকারও প্রয়োজন।ইতিমধ্যে পরমব্রতের এই টুইটের পরই অনেকেই টুইটারে হাসপাতালে বেড সংক্রান্ত বিষয়ে বিভিন্ন তথ্য শেয়ার করা শুরু করেছেন। অনেকেই তথ্য শেয়ার করা শুরু করে দিয়েছেন।অনেকে আবার সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেদের সমস্যার কথা জানিয়ে কোন হাসপাতালে কত বেড আছে, তা জানারও চেষ্টা করেছেন।

উল্লেখ্য, রাজ্যে ক্রমশই অক্সিজেনের জোগানোর সংকট বাড়ছে। হাসপাতালের বেডও চাহিদার তুলনায় কম। কোনও কোনও হাসপাতালে বেডও পাওয়া যাচ্ছে না।পাশাপাশি ভ্যাকসিন নিতে গিয়েও পাচ্ছেন না মানুষ। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা প্রায় ১৩ হাজার ছুঁইছুঁই। পরিস্থিতি এখন কোন দিকে যাচ্ছে তা নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে সাধারণ মানু্ষের মধ্যে।এরমধ্যে পরমব্রতর টুইট মানুষকে নতুন দিশা দেবে বলেই ওয়াকিবহল মহলের মত।

বন্ধ করুন