বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > 100 Days Job: একশো দিনের কাজের টাকা বাকি, কেন্দ্রের বিরুদ্ধে কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা

100 Days Job: একশো দিনের কাজের টাকা বাকি, কেন্দ্রের বিরুদ্ধে কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা

একশো দিনের কাজ ছবি (‌সৌজন্য ফেসবুক)‌

কেন্দ্র টাকা না দিলেও রাজ্য সরকার নিজের উদ্যোগে তহবিল তৈরি করে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। যা কার্যত খুব কঠিন কাজ। এটা অর্থনৈতিক অবরোধের সামিল বলে মনে করা হচ্ছে। কৃষিমন্ত্রী বারবার কেন্দ্রের সঙ্গে যোগাযোগ করতে চাইলে তাঁর ফোন ধরা হচ্ছে না বলে অভিযোগ। আদালতে সেই তথ্য পেশ করা হয়েছে।

বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বারবার অভিযোগ করেছেন, একশো দিনের কাজে টাকা দিচ্ছে না কেন্দ্রীয় সরকার। এমনকী বিপুল পরিমাণ টাকা বকেয়া কেন্দ্রের কাছে। এই নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী একাধিকবার কেন্দ্রকে চিঠিও দিয়েছেন। কিন্তু টাকা মেলেনি। এবার বিষয়টি নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে দায়ের হল জনস্বার্থ মামলা। সেখানে মুখ্যমন্ত্রীর চিঠির কথা উল্লেখ করা হয়েছে। এখনও পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৬০০০ কোটি টাকা বকেয়া বলে হলফনামায় জানানো হয়েছে। জনস্বার্থ মামলাটি গৃহীত হয়েছে আদালতে।

ঠিক কী অভিযোগ উঠেছে?‌ একশো দিনের কাজের টাকা–সহ গ্রামোন্নয়নের টাকা দিচ্ছে না কেন্দ্রীয় সরকার। ফলে গ্রামীণ কাজ করতে অসুবিধা হচ্ছে। এই নিয়ে কেন্দ্র–রাজ্যের দ্বন্দ্ব চরমে উঠেছে। এমনকী মুখ্যমন্ত্রী নিজে একাধিকবার কেন্দ্রকে চিঠি পাঠিয়েছেন। আবার কৃষিমন্ত্রী প্রদীপ মজুমদারকেও তিনি যোগাযোগ করতে নির্দেশ দিয়েছেন। নয়াদিল্লি গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠক করেও তিনি বকেয়া টাকা দ্রুত পাঠানোর কথা জানিয়েছেন। তারপরেও মেলেনি একশো দিনের টাকা।

ঠিক কী ঘটেছে কলকাতা হাইকোর্টে?‌ এবার এই একশো দিনের টাকা না দেওয়া নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের হস্তক্ষেপ চাইলেন আইনজীবী। তিনি হলফনামা দিয়ে অভিযোগ করেন, কেন্দ্রের ‘বঞ্চনা’র জেরে গ্রামাঞ্চলে কাজ বন্ধ হয়ে গিয়েছে। একশো দিনের কাজ বন্ধের জেরে অস্থায়ী শ্রমিকদেরও উপার্জন বন্ধ হযে গিয়েছে। গ্রামের খেটে খাওয়া মানুষ কষ্টে আছে। তাই কেন্দ্রকে দুষেই কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করলেন আইনজীবী আবু সোহেল।

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ কেন্দ্র টাকা না দিলেও রাজ্য সরকার নিজের উদ্যোগে তহবিল তৈরি করে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। যা কার্যত খুব কঠিন কাজ। এটা অর্থনৈতিক অবরোধের সামিল বলে মনে করা হচ্ছে। কৃষিমন্ত্রী বারবার কেন্দ্রের সঙ্গে যোগাযোগ করতে চাইলে তাঁর ফোন ধরা হচ্ছে না বলে অভিযোগ। আদালতে সেই তথ্য পেশ করা হয়েছে। রাজ্যের প্রাপ্য টাকা পেতে কলকাতা হাইকোর্ট হস্তক্ষেপ করুক বলে আবেদন করা হয়েছে।

বন্ধ করুন