বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > PIL: দীর্ঘ গরমের ছুটি বাতিলের দাবি, শিক্ষক সংগঠনের জনস্বার্থ মামলা হাইকোর্টে
গরমের ছুটি বাতিলের দাবিতে জনস্বার্থ মামলা। প্রতীকী ছবি (PTI Photo)  (PTI)

PIL: দীর্ঘ গরমের ছুটি বাতিলের দাবি, শিক্ষক সংগঠনের জনস্বার্থ মামলা হাইকোর্টে

  • অন্যদিকে বঙ্গীয় নব উন্মেষ প্রাথমিক শিক্ষক সঙ্ঘও এই লম্বা ছুটির বিরুদ্ধে আদালতে যাওয়ার পরিকল্পনা নিচ্ছে। তাঁদের দাবি স্কুল বন্ধ রেখে সমাজের কাছে শিক্ষকদের হেয় করা হচ্ছে। এটা মেনে নেওয়া যাবে না। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কানুপ্রিয় দাস বলেন, আমরাও এনিয়ে আদালতে যাব।

প্রায় দেড় মাস গরমের ছুটি। এবার সেই ছুটি বাতিলের দাবিতে আদালতের দ্বারস্থ হল শিক্ষক সংগঠন। বঙ্গীয় প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির তরফে সোমবার কলকাতা হাইকোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হয়েছে। সংগঠনের দাবি, দীর্ঘদিন স্কুল বন্ধ ছিল। অনেক ছাত্রছাত্রী অ-আ- ক-খ ভুলে গিয়েছে। এরপর যদি গরমের অজুহাত দিয়ে স্কুল দেড় মাস বন্ধ করে দেওয়া হয় তবে ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি হবে। সংগঠনের তরফে প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, শিক্ষাদফতর ২ মে থেকে ১৫ই জুন পর্যন্ত ৪৫ দিনের গরমের ছুটি ঘোষণা করেছে। সেই ছুটির বিরুদ্ধেই সমিতির সাধারণ সম্পাদক কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা করেছেন।

সমিতির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক আনন্দ হাণ্ডা হিন্দুস্তান টাইমস ডিজিটাল বাংলাকে বলেন, শিক্ষা ধ্বংসকারী এই দীর্ঘ ছুটি। অবিলম্বে স্কুল চালু করতে হবে। এভাবে ছুটি দিলে ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনার একেবারে লাটে উঠে যাবে। বহু ছাত্রছাত্রী অ- আ ভুলে গিয়েছে। এভাবে ছুটি দিয়ে তাদের ভবিষ্যৎ নষ্ট করা যাবে না। এদিকে সমিতির তরফে জানানো হয়েছে, আগামী ৫ই মে কলেজ স্কোয়ারের বিদ্যাসাগর মূর্তির পাদদেশে এনিয়ে অবস্থান কর্মসূচিও হবে। শিক্ষক, অভিভাবকদের একাংশের দাবি, ঝড়বৃষ্টির জেরে গরমের তীব্রতা কিছুটা কমেছে। এভাবে এত লম্বা ছুটি দেওয়ার কোনও যুক্তি নেই।

এদিকে শিক্ষকদের একাংশের দাবি, সমাজের কাছে শিক্ষক সমাজকে ফাঁকিবাজ হিসাবে তুলে ধরা হচ্ছে। দিন কয়েকের তাপপ্রবাহের সতর্কতা ছিল। সেই অজুহাত দেখিয়ে এত লম্বা ছুটি দেওয়া ঠিক নয়। তাছাড়া বহু বেসরকারি স্কুলে ছুটি নেই। এমনকী উত্তরবঙ্গের একাধিক জেলায় সোয়েটার পরে স্কুল যাওয়ার ছবিও সামনে এসেছে। সেক্ষেত্রে এই সিদ্ধান্ত বাতিল করা দরকার।

বন্ধ করুন