বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > আয়–ব্যয়ের হিসাবে স্বচ্ছ বাংলা, চিঠি দিয়ে মোদী সরকার প্রশংসা করল মমতার
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্য প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়)
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্য প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়)

আয়–ব্যয়ের হিসাবে স্বচ্ছ বাংলা, চিঠি দিয়ে মোদী সরকার প্রশংসা করল মমতার

  • অগস্ট মাসে কেন্দ্রীয় সরকারের অডিট অ্যান্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট জেনারেলের অফিস চিঠি পাঠিয়েছে নবান্নে।

বঙ্গ–বিজেপি নেতারা যতই রাজ্য সরকারের সমালোচনা করুক কেন্দ্রীয় সরকার কিন্তু প্রশংসাপত্র পাঠিয়েই চলেছে। সুতরাং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার যে কাজ করছে তা প্রমাণিত হচ্ছে। বুধবার ফের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের কাছে প্রশংসাপত্র এল নরেন্দ্র মোদীর সরকারের থেকে। আর তাতে অস্বস্তি বাড়ল রাজ্য বিজেপি নেতাদের।

কী নিয়ে এল প্রশংসা?‌ এবারের প্রশংসা আর্থিক আয়–ব্যয়ের হিসাব নিয়ে। অগস্ট মাসে কেন্দ্রীয় সরকারের অডিট অ্যান্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট জেনারেলের অফিস চিঠি পাঠিয়েছে নবান্নে। চিঠিটি পাঠিয়েছেন দেশের ডেপুটি অ্যাকাউন্ট্যান্ট জেনারেল (প্রশাসন) রাহুল কুমার। চিঠিতে গত আর্থিক বছরে পশ্চিমবঙ্গের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের বরাদ্দ এবং রাজ্যের খরচের হিসাব ১০০ শতাংশ মিলে গিয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। অর্থাৎ বিজেপি নেতারা যে অভিযোগ তোলেন, কেন্দ্রীয় সরকারের অর্থ সঠিকভাবে ব্যবহার হচ্ছে না সেকথা আর ধোপে টিকল না।

রাজ্য সরকারের যাবতীয় খরচ–খরচার উপর নজরদারি করে কেন্দ্রীয় সরকারের নিয়ন্ত্রাধীন অডিট অ্যান্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট জেনারেল অফিস। সেখানে রাজ্য সরকারকে চিঠি পাঠিয়ে আর্থিক লেনদেনের হিসাব রাখার পদ্ধতি নিয়েও সন্তোষপ্রকাশ করা নিঃসন্দেহে বাড়তি পালক যোগ হল। চিঠিতে লেখা হয়েছে, ‘২০২০–২১ অর্থবর্ষে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের অর্থ প্রাপ্তি ও বরাদ্দ অর্থ খরচের ১০০ শতাংশ তথ্য পাওয়া গিয়েছে। সব তথ্যই এসেছে অনলাইনের মাধ্যমে। স্বচ্ছতার সঙ্গে সব কিছু করা হয়েছে।’ অর্থাৎ আর উলটোপাল্টা অভিযোগ তোলা যাবে না রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে।

এই সংস্থা কোনও ক্ষেত্রে সমস্যা হলে, ব্যাখ্যাও চাইতে পারে রাজ্যগুলির কাছে। কোনও কোনও ক্ষেত্রে রাজ্য অর্থ দফতরকে নানা পরামর্শ এবং নির্দেশও দিয়ে থাকে। যা নিয়ে কেন্দ্র–রাজ্য সংঘাতের পরিস্থিতি পর্যন্ত তৈরি হয়। কিন্তু এক্ষেত্রে চিঠিতে কোনও পরামর্শ বা নির্দেশ দেওয়া হয়নি। বরং রাজ্য সরকার প্রশংসা করা হয়েছে।

বন্ধ করুন