বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Fake call centre: জিও কর্মী পরিচয় দিয়ে চলত প্রতারণা! ফের ভুয়ো কল সেন্টার, ধৃত ৩৪

Fake call centre: জিও কর্মী পরিচয় দিয়ে চলত প্রতারণা! ফের ভুয়ো কল সেন্টার, ধৃত ৩৪

ভুয়ো কল সেন্টার চালানোর অভিযোগে ধৃত ৩৪ জন। প্রতীকী ছবি। (HT_PRINT)

সেক্টর ফাইভের শৈল টাওয়ারে একটি অফিস ভাড়া নিয়েছিল প্রতারকরা। সেখানে ৬ তলায় চলছিল এই কল সেন্টার। রাজ্যের পাশাপাশি ভিন রাজ্যেও তারা ফোন করে প্রতারণা চালাত। সম্প্রতি প্রতারণার অভিযোগ পেয়ে ওই কল সেন্টারে হানা দেয় পুলিশ এবং গোয়েন্দারা। 

জিও কোম্পানির টাওয়ার বসানোর নামে আবার কখনও জিও ফাইন্যান্স সার্ভিসের নামে চলত প্রতারণা। কল সেন্টারের কর্মীরা নিজেদের জিও কোম্পানির কর্মী বলেই দাবি করত। আর এইভাবে বহু মানুষের কাছ থেকে হাতিয়ে নিত প্রচুর টাকা। শেষমেষ সেই প্রতারকদের জালে তুলল পুলিশ। বিধাননগর গোয়েন্দা শাখা এবং ইলেকট্রনিক্স কমপ্লেক্স থানার পুলিশ গতকাল ৩৪ জনকে গ্রেফতার করেছে। যার মধ্যে ১২ জন মহিলা।

দমদমে চলছিল ভুয়ো কলসেন্টার, গ্রেফতার ৫, কীভাবে চলত প্রতারণা?

জানা গিয়েছে, সেক্টর ফাইভের শৈল টাওয়ারে একটি অফিস ভাড়া নিয়েছিল প্রতারকরা। সেখানে ৬ তলায় চলছিল এই কল সেন্টার। রাজ্যের পাশাপাশি ভিন রাজ্যেও তারা ফোন করে প্রতারণা চালাত। সম্প্রতি প্রতারণার অভিযোগ পেয়ে ওই কল সেন্টারে হানা দেয় পুলিশ এবং গোয়েন্দারা। সেখানে হানা দিয়ে প্রচুর মোবাইল, কম্পিউটার সহ বেশ কিছু নথি উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ ধৃতদের বিধাননগর মহকুমা আদালতে তুলে পুলিশ হেফাজতের জন্য আবেদন জানানো হয়। পুলিশের অনুমান, এর সঙ্গে আরও অনেকেই যুক্ত থাকতে পারে। তাদের গ্রেফতারের জন্য জিজ্ঞাসাবাদে প্রয়োজন রয়েছে বলে মনে করছে পুলিশ।

এই প্রতারকরা মোবাইলের মাধ্যমে বিভিন্ন রাজ্যে ফোন করে মোবাইল টাওয়ার বসানোর পাশাপাশি ঋণ নেওয়ার নামে প্রতারণা করত। সেক্ষেত্রে কেউ মোবাইল টাওয়ার বসাতে আগ্রহী হলে তার কাছ থেকে আগে সিকিউরিটি ডিপোজিট নিয়ে নিত। এভাবেই চলত প্রতারণা। ধৃতদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারায় মামলার রুজু করেছে পুলিশ।

বন্ধ করুন