বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > স্বামী - স্ত্রী মিলে তরুণীকে ধর্ষণ, বেলেঘাটা থেকে গ্রেফতার দম্পতি
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

স্বামী - স্ত্রী মিলে তরুণীকে ধর্ষণ, বেলেঘাটা থেকে গ্রেফতার দম্পতি

  • তাঁকে বাধা দিতে থাকেন তরুণী। ততক্ষণে পৌঁছে যান বিষ্ণুপদর স্ত্রী রণিতা। অভিযোগ তরুণীর হাত চেপে ধরে স্বামীকে ধর্ষণে সাহায্য করেন তিনি।

htহাত চেপে ধরে রেখেছিলেন স্ত্রী। আর ধর্ষণ করেন স্বামী। বাঘাযতীনে চাঞ্চল্যকর এই ঘটনায় স্বামী ও স্ত্রীকে গ্রেফতার করল পুলিশ। রবিবার রাতে অভিযোগ জমা পড়ার পর সোমবার দম্পতিকে গ্রেফতার করেছে পাটুলি থানার পুলিশ। অভিযুক্ত দম্পতির নাম বিষ্ণুপদ মণ্ডল ও রণিতা মণ্ডল।

অভিযোগকারিনী জানিয়েছেন, তাঁর মা নেই। বাবার সঙ্গেই থাকেন ২২ বছরের তরুণী। সম্প্রতি তাঁর বাবার কাজ চলে গেলে আতান্তরে পড়ে পরিবারটি। তখনই তরুণীর সঙ্গে পরিচয় হয় রণিতা মণ্ডল নামে এক মহিলার। বেলেঘাটার বাসিন্দা রণিতাদেবী সেখানেই একটি ব্যাগের কারখানার কর্মী। তিনি তরুণীকে ব্যাগের কারখানায় কাজের ব্যবস্থা করে দেন।

এরই মধ্যে গত ৯ ফেব্রুয়ারি রণিতাদের বাড়ি যান ওই তরুণী। রণিতা তখন বাড়িতে ছিলেন না। ছিলেন তাঁর স্বামী বিষ্ণুপদ। অভিযোগ, তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন তিনি। তাঁকে বাধা দিতে থাকেন তরুণী। ততক্ষণে পৌঁছে যান বিষ্ণুপদর স্ত্রী রণিতা। অভিযোগ তরুণীর হাত চেপে ধরে স্বামীকে ধর্ষণে সাহায্য করেন তিনি।

ঘটনার কথা প্রথমে চেপে গিয়েছিলেন তরুণী। কিন্তু শেষে এক আত্মীয়কে সব কথা বলেন তিনি। তার পরই রবিবার পাটুলি থানায় গিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন বিষ্ণুপদ ও রণিতার বিরুদ্ধে। অভিযোগ পেয়েই সোমবার সকালে বিষ্ণুপদ ও রণিতাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদের আলিপুর আদালতে পেশ করলে ২৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

কেন একজন স্ত্রী তাঁর স্বামীকে ধর্ষণে সাহায্য করলেন, জানতে তদন্তে নেমেছে পুলিশ। মেডিক্যাল পরীক্ষা করানো হয়েছে নির্যাতিতার।

বন্ধ করুন