বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > দ্রুত সিটি স্ক্যান করিয়ে দেওয়ার নামে দালাল চক্র এসএসকেএম হাসপাতালে, ধৃত ২
এসএসকেএম হাসপাতাল।

দ্রুত সিটি স্ক্যান করিয়ে দেওয়ার নামে দালাল চক্র এসএসকেএম হাসপাতালে, ধৃত ২

  • পূর্ব বর্ধমানের ভাতারের বাসিন্দা আব্বাস আলি খান চিকিৎসার জন্য এসএসকেএম হাসপাতালে গিয়েছিলেন।

পিজি হাসপাতালে দালালচক্রের অভিযোগ নতুন নয়। কখনও শয্যা পাইয়ে দেওয়ার নাম করে আবার কখনও অস্ত্রোপচারের নামে পিজি হাসপাতালে দালালচক্রের অভিযোগ উঠেছে একাধিবার। সেই ঘটনার পরেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে সক্রিয় থাকার নির্দেশ দিয়েছিল স্বাস্থ্য ভবন। কিন্তু, তারপরেও দালালচক্র বন্ধ হচ্ছে না এসএসকেএমে। এবার দ্রুত সিটি স্ক্যান করিয়ে দেওয়ার নামে দালাল চক্র সক্রিয় হয়েছে এসএসকেএম হাসপাতালে। এই দালালচক্রের সঙ্গে সরাসরি জড়িত হাসপাতালের নিরাপত্তারক্ষীদের একাংশ। অভিযোগ পুলিশ এসএসকেএম হাসপাতালের দুই নিরাপত্তারক্ষীকে গ্রেফতার করেছে। ধৃতদের নাম আদিত্য হাজরা এবং নওশাদ আলম।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, পূর্ব বর্ধমানের ভাতারের বাসিন্দা আব্বাস আলি খান চিকিৎসার জন্য এসএসকেএম হাসপাতালে গিয়েছিলেন। সেই সময় চিকিৎসকরা তাকে সিটি স্ক্যানের পরামর্শ দেন। কিন্তু, তিনি জানতে পারেন যে সিটি স্ক্যানের জন্য অনেক সময় লেগে যাবে। তখনই আদিত্য হাজরা নামে এক নিরাপত্তারক্ষী তার কাছে আসেন। তিনি দ্রুত সিটি স্ক্যান করার প্রস্তাব দেন। এর জন্য নওশাদ নামে অন্য এক নিরাপত্তারক্ষীর সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন আদিত্য। এর জন্য রোগীর কাছ থেকে ২০০০ টাকা নেই বলে অভিযোগ। বিষয়টি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের নজরে আসতেই তদন্তে নামে পুলিশ। এরপরেই ওই দুজনকে গ্রেফতার করে। তাদের কাছ থেকে টাকা উদ্ধার হয়েছে।

প্রসঙ্গত গত বৃহস্পতিবার আশিস চট্টোপাধ্যায় নামে আরও এক দালালকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, তিনি এসএসকেএম হাসপাতাল থেকে আরজিকর হাসপাতালে ভর্তি করিয়ে দেওয়ার নামে টাকা নিয়েছিলেন এক রোগীর কাছ থেকে। এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে শয্যা পাইয়ে দেওয়ার নাম করে এসএসকেএম-এ দালাল চক্রের অভিযোগ উঠেছিল। এদের সঙ্গে আরও কেউ জড়িত আছে কিনা তা জানার চেষ্টা করছে পুলিশ।

বন্ধ করুন