দিলীপ ঘোষ। ফাইল ছবি
দিলীপ ঘোষ। ফাইল ছবি

রোহিঙ্গাদের আটকাতে পারে না, যত বীরত্ব BJP-র বেলা, পাটুলিতে কটাক্ষ দিলীপের

এর পরই সুর চড়ান দিলীপবাবু। বলেন, বালির বাঁধ দিয়ে পশ্চিমবঙ্গে বিজেপিকে রোখা যাবে না।

ফের একবার মুখোমুখি বিজেপি ও পুলিশ। এবার কলকাতা লাগোয়া পাটুলিতে। বিজেপির অভিনন্দন যাত্রা ব্যারিকেড দিয়ে রুখল পুলিশ। সুযোগ পেয়ে পুলিশকে আরেক প্রস্থ শুনিয়ে দিলেন দিলীপও।

বৃহস্পতিবার দক্ষিণ কলকাতা লাগোয়া পাটুলিতে অভিনন্দন যাত্রার আয়োজন করেছিল বিজেপি। সেখানে হাজির ছিলেন দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। পাটুলি থেকে পদযাত্রা শুরু করে কিছুদূর এগোতেই বিজেপির মিছিল আটকায় পুলিশ। সেখানেই গাড়ির ওপর দাঁড়িয়ে পুলিশ ও রাজ্য সরকারকে একহাত নেন দিলীপবাবু।

বলেন, এই পুলিশের রোহিঙ্গাদের রোখার ক্ষমতা নেই। বিজেপি দেখলেই এদের বীরত্ব বেরিয়ে পড়ে। অন্য কারও সভা সমাবেশ করতে অনুমতি লাগে না। আর বিজেপি অনুমতি চাইলেও পায় না। আমরা এখানে পুলিশের সঙ্গে মারামারি করতে আসিনি। আমরা এসেছি শান্তিপূর্ণ মিছিল করতে। সেই মিছিলও আটকে দিল পুলিশ।

এর পরই সুর চড়ান দিলীপবাবু। বলেন, বালির বাঁধ দিয়ে পশ্চিমবঙ্গে বিজেপিকে রোখা যাবে না। উত্তর বঙ্গে বিজেপির একের পর এক মিছিলে রেকর্ড লোক হয়েছে। অনেক জায়গায় অনুমতি না নিয়েই মিছিল করেছি। কিন্তু পুলিশ রুখতে পারেনি। ৩০,০০০ – ৪০,০০০ মানুষ এক জায়গায় হলে পুলিশের রোখার ক্ষমতা রয়েছে না কি?

এদিনও বাংলাদেশে উদ্বাস্তুদের ওপর নির্যাতনের প্রসঙ্গ তুলে তৃণমূল ও বামকে নিশানা করেন দিলীপ। বলেন, প্রজন্মের পর প্রজন্ম নির্যাতিত হয়ে এদেশে আসতে বাধ্য হয়েছেন যাঁরা, তাদের চোখে একটাই স্বপ্ন ছিল। ভারতের নাগরিকত্ব পাব। উদ্বাস্তুদের সেই নাগরিকত্ব দেওয়ার হিম্মত এতদিন কারও হয়নি। নরেন্দ্র মোদী ৫৬ ইঞ্চি ছাতির জোরে সেই নাগরিকত্ব দেওয়ার ব্যবস্থা করেছেন। তাতেও বিরোধিতা করছে এরা। সঙ্গে সঙ্গে জয় শ্রী রাম ধ্বনী ওঠে সভাস্থলে।



বন্ধ করুন