বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Dead body: কলকাতা হাইকোর্টের আইনজীবীর পচাগলা দেহ উদ্ধার, ৪ দিন ধরে দেহ পড়েছিল

Dead body: কলকাতা হাইকোর্টের আইনজীবীর পচাগলা দেহ উদ্ধার, ৪ দিন ধরে দেহ পড়েছিল

আইনজীবী কৌশিক দে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতের বাড়ি হরিদেবপুর থানা এলাকার কালিতলা এলাকায়। সেখানকার একটি আবাসনে একাই থাকতেন তিনি। পরিবারে তার কেউ ছিল না। বছর আগে তাঁর বাবা মারা যান। তারপর থেকে ফ্ল্যাটে তিনি একাই থাকতেন। জানা গিয়েছে, শারীরিক কিছু প্রতিবন্ধকতা ছিল তার।

বন্ধ ঘরের ভিতর থেকে এক আইনজীবীর পচা গলা দেহ উদ্ধার হল। বৃহস্পতিবার দুপুরে মৃত ওই আইনজীবীর দেহ উদ্ধার করে হরিদেবপুর থানার পুলিশ। ওই আইনজীবীর নাম কৌশিক দে। তিনি কলকাতা হাইকোর্টের আইনজীবী ছিলেন। এদিন তার মৃত্যুর খবরে মর্মাহত হয়ে পড়েন তার সহকর্মী আইনজীবীরা। অনেকেই ছুটে যান তাঁর বাড়িতে। পুলিশ এসে তার দেহ উদ্ধার করে। মৃত্যুর কারণ জানতে দেহ ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতের বাড়ি হরিদেবপুর থানার কালিতলা এলাকায়। সেখানকার একটি আবাসনে একাই থাকতেন তিনি। পরিবারে তার কেউ ছিল না। বছর আগে তাঁর বাবা মারা যান। তারপর থেকে ফ্ল্যাটে তিনি একাই থাকতেন। জানা গিয়েছে, শারীরিক কিছু প্রতিবন্ধকতা ছিল তার। তা সত্বেও তিনি নিয়মিত হাইকোর্টে যেতেন। কিন্তু গত দশ দিন হাইকোর্টে আসেননি তিনি। তাঁকে ফোনেও পাননি সহকর্মীরা। এরপরই তার খোঁজ নিতে আবাসনে যান কয়েক জন আইনজীবী। সেখানে দেখা যায়, ঘরের ভিতর থেকে দরজা বন্ধ রয়েছে। পচা দুর্গন্ধ বের হচ্ছে। খবর দেওয়া হয় পুলিশে।

পড়শিরা জানাচ্ছেন, দিন পাঁচেক আগে তাঁকে পাড়ার খেলার মাঠে শেষ বার দেখা গিয়েছিল। তারপর তাঁকে আর দেখা যায়নি। পুলিশের অনুমান, তিন চার দিন আগে মৃত্যু হয়েছে তাঁর। সহকর্মীরা জানাচ্ছেন, খেলাধুলা ভালোবাসতেন কৌশিক। তবে শেষ দিকে একটু আর্থিক সমস্যা দেখা দিয়েছিল তাঁর। তাঁর সহকর্মী আইনজীবী ডেভিড ফ্রান্সিস বলেন, ‘ওকে সবাই খুব ভালোবাসতেন। এভাবে ও চলে যাবে আমরা ভাবতেও পারছি না। খবর পাওয়ার পর থেকে মনটা ভারাক্রান্ত হয়ে পড়েছে।’

বন্ধ করুন