বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > ফের বিজেপির মিছিলে পুলিশের বাধা, অর্জুন বললেন, ২০২১-এ মানুষ জবাব দেবে
রবিবার সকালে দুর্গানগর পোস্ট অফিসের সামনে অর্জুন সিং।
রবিবার সকালে দুর্গানগর পোস্ট অফিসের সামনে অর্জুন সিং।

ফের বিজেপির মিছিলে পুলিশের বাধা, অর্জুন বললেন, ২০২১-এ মানুষ জবাব দেবে

  • এদিন দুর্গানগরে মিছিলে যোগ দিতে হাজির হন কয়েক হাজার বিজেপি কর্মী। তাদের অনেকের মুখে ছিল না মাস্ক। লকডাউনের মধ্যে এত বড় জমায়েত করা যাবে না বলে বিজেপি নেতাদের জানান পুলিশ আধিকারিকরা।

ফের বিজেপির কর্মসূচিতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধে। যাকে কেন্দ্র করে রবিবার সকালে ধুন্ধুমার বাঁধে উত্তর ২৪ পরগনার দুর্গানগরে। অর্জুন সিংয়ের নেতৃত্বে এদিন বিজেপির মিছিলে যোগ দেন কয়েক হাজার মানুষ। মিছিল শুরু হতেই বাধা দেয় নিমতা থানার পুলিশ। এর পর পুলিশকর্মীদের সঙ্গে বিজেপি কর্মীদের হাতাহাতি বেঁধে যায়। 

ঘটনার সূত্রপাত শনিবার বিকেলে। রবিবার সকালে নিমতা এলাকায় দিলীপ ঘোষের চা চক্র আয়োজনের কথা ছিল। সেজন্য ছোট মঞ্চ বেঁধেছিল বিজেপি। শনিবার সন্ধ্যায় সেই মঞ্চে ভাঙচুর চালায় তৃণমূলি গুন্ডারা। পালটা রবিবার সকালে দুর্গানগর এলাকায় প্রতিবাদ মিছিলের ডাক দেন অর্জুন সিং। 

এদিন দুর্গানগরে মিছিলে যোগ দিতে হাজির হন কয়েক হাজার বিজেপি কর্মী। তাদের অনেকের মুখে ছিল না মাস্ক। লকডাউনের মধ্যে এত বড় জমায়েত করা যাবে না বলে বিজেপি নেতাদের জানান পুলিশ আধিকারিকরা। কিন্তু বিজেপি নেতারা তা মানতে রাজি ছিলেন না। 

পুলিশের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করেই এগোনোর চেষ্টা করে মিছিল। সঙ্গে সঙ্গে বাধা দেন পুলিশকর্মীরা। দুপক্ষের মধ্যে তুমুল ধস্তাধস্তি শুরু হয়। এর পর নিমতা থানায় গিয়ে স্মারকলিপি জমা দেন অর্জুন সিং-সহ বিজেপি নেতারা। 

থানা থেকে বেরিয়ে অর্জুন সিং বলেন, ‘এই রাজ্যে শাসকদলের জন্য এক আইন আর বিরোধীদের জন্য আইন আলাদা। শাসকদল যত খুশি লোক জড়ো করে সভা – সমাবেশ করতে পারে। তখন পুলিশের চোখে পড়ে না। আর বিরোধীরা জড়ো হওয়ার চেষ্টা করলেই পুলিশের করোনার কথা মনে পড়ে। মানুষ সব দেখছে। ২০২১-এ মমতা ব্যানার্জি টের পাবেন। পশ্চিমবঙ্গে বিজেপিকে এভাবে রোখা যাবে না।’

 

বন্ধ করুন