বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > 'প্রণাম'-র সদস্যরা ঠিক আছেন তো? করোনার মাধ্যমে ফোন, ভিডিয়ো কলে খোঁজ নেবে পুলিশ
আপাতত দেখা যাবে না এমন দৃশ্য (ফাইল ছবি, সৌজন্যে ফেসবুক Sanghamitra Bulbuli)

'প্রণাম'-র সদস্যরা ঠিক আছেন তো? করোনার মাধ্যমে ফোন, ভিডিয়ো কলে খোঁজ নেবে পুলিশ

  • কোভিড আবহে বেড়ে চলা অনলাইন বা সাইবার প্রতারণা সম্পর্কেও সতর্ক করেছেন পুলিশ কমিশনার।

মহানগরে একাকী প্রবীণদের পাশে দাঁড়াতে 'প্রণাম' প্রকল্প চালু করেছিল কলকাতা পুলিশ। সাধারণত পুলিশকর্মীরা একাকী প্রবীণদের বাড়ি গিয়ে তাদের নানারকমভাবে সাহায্য করে থাকেন। কিন্তু, করোনার বাড়বাড়ন্তের ফলে এখন পুলিশকর্মী এবং আধিকারিকরা করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন। ফলে তাঁদের সংস্পর্শে এসে যাতে কোনওভাবেই প্রবীণ নাগরিকদের মধ্যে সংক্রমণ না ছড়ায়, সেজন্য বাড়িতে না গিয়ে ফোন বা ভিডিও কলের মাধ্যমে তাঁদের সঙ্গে পুলিশকে যোগাযোগ রাখার নির্দেশ দিলেন কলকাতার পুলিশ কমিশনার বিনীত গোয়েল।

গত সোমবার কলকাতা পুলিশের আধিকারিকদের সঙ্গে এ নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক করেন পুলিশ কমিশনার। সমস্ত থানাকে তিনি নির্দেশ দিয়েছেন সপ্তাহে একদিন ভিডিও কলের মাধ্যমে প্রবীণদের খোঁজ নিতে হবে। এই নির্দেশ পাওয়ার পরে ইতিমধ্যেই বেশ কিছু থানা হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ তৈরি করেছে। যেখানে প্রণামের সদস্যদের অ্যাড করার পাশাপাশি তাঁদের নিয়ে কাজ করা পুলিশকর্মীদেরও গ্রুপে যুক্ত করা হয়েছে।

পুলিশ কর্তাদের মতে, এমনিতেই প্রণামের বহু সদস্য অর্থাৎ বয়স্ক নাগরিকরা বিভিন্ন অসুখে ভুগছেন। এই অবস্থায় পুলিশ তাদের সংস্পর্শে আসলে তাদের মধ্যেও সংক্রমণ ছড়ানোর সম্ভাবনা প্রবল থাকছে। সেই কারণে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে লালবাজার।

পুলিশ আধিকারিকদের পাশাপাশি কমিশনারের সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠকে ছিলেন প্রণামের সদস্যরা। তাঁদের খোঁজ খবর নেওয়ার পাশাপাশি কোভিড আবহে বেড়ে চলা অনলাইন বা সাইবার প্রতারণা সম্পর্কেও সতর্ক করেছেন পুলিশ কমিশনার। সঙ্গে পুলিশকে ব্যক্তিগতভাবে প্রণামের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশ কমিশনার।

উল্লেখ্য, ২০০৯ সালে একাকী প্রবীণ নাগরিকদের কথা ভেবে 'প্রণাম ' প্রকল্প চালু করেছিল কলকাতা পুলিশ। যার মাধ্যমে প্রবীণ নাগরিকদের সমস্ত প্রয়োজনীয় জিনিস বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার পাশাপাশি ওষুধ, চিকিৎসার ব্যবস্থা করে থাকে পুলিশ। এখনও পর্যন্ত প্রণামে সদস্য রয়েছেন কলকাতার প্রায় ১৮ হাজার প্রবীণ নাগরিক। এই অবস্থায় কোভিড পরিস্থিতির মধ্যে যাতে তাঁদের কোনও রকমের অসুবিধা না হয়, সে বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন কমিশনার।

বন্ধ করুন