বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > তিন সপ্তাহ পিছিয়ে গেল ৪ পুরনিগমের ভোটগ্রহণ, আজই জারি হতে চলেছে বিজ্ঞপ্তি
বড় খবর

তিন সপ্তাহ পিছিয়ে গেল ৪ পুরনিগমের ভোটগ্রহণ, আজই জারি হতে চলেছে বিজ্ঞপ্তি

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য নির্বাচন কমিশনের দফতর। 
পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য নির্বাচন কমিশনের দফতর। 

  • শুক্রবার পুরভোট পিছনো সংক্রান্ত এক মামলায় কলকাতা হাইকোর্ট নির্দেশে দেয়, করোনা পরিস্থিতিতে ভোটগ্রহণ পিছনো সম্ভব কি না তা ঠিক করে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে আদালতকে জানাতে হবে।

তিন সপ্তাহ পিছিয়ে যেতে চলেছে চার পুরনিগম নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। আদালতের নির্দেশের পর এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য নির্বাচন কমিশনার। শনিবার দুপুরে কমিশন সূত্রে এমনই খবর পাওয়া গিয়েছে। কয়েক ঘণ্টার মধ্যে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে তা জানিয়ে দেবে কমিশন।

সূত্রের খবর, ২২ জানুয়ারির বদলে বিধাননগর, চন্দননগর, আসানসোল ও শিলিগুড়ি পুরনিগমের ভোটগ্রহণ হবে ১২ ফেব্রুয়ারি। গণনা হতে পারে ১৫ ফেব্রুয়ারি। তবে এব্যাপারে এখনো বিজ্ঞপ্তি জারি করেনি কমিশন।

শুক্রবার পুরভোট পিছনো সংক্রান্ত এক মামলায় কলকাতা হাইকোর্ট নির্দেশে দেয়, করোনা পরিস্থিতিতে ভোটগ্রহণ পিছনো সম্ভব কি না তা ঠিক করে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে আদালতকে জানাতে হবে। এর পরই শনিবার সকালে রাজ্য সরকারের তরফে ভোটগ্রহণ পিছলে আপত্তি নেই বলে জানিয়ে কমিশনকে চিঠি দেওয়া হয়। সঙ্গে জানানো হয়, ভোটগ্রহণ হলে সংক্রমণ প্রতিরোধে তৈরি রাজ্য সরকার। তার পরই কমিশনের কর্তারা বৈঠকে বসে ভোটগ্রহণ পিছনোর সিদ্ধান্ত নেন।

চার পুরসভা নির্বাচনে ভোটগ্রহণ পিছনোর এক্তিয়ার কার তা নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে বিভ্রান্তি তৈরি হয়। কমিশন ও রাজ্য সরকার, দুপক্ষেরই দাবি, নির্বাচন পিছনো তাদের এক্তিয়ার নয়। যদিও বিশেষজ্ঞদের মতে, নির্বাচন স্থগিত বা পিছনোর যাবতীয় অধিকার রয়েছে কমিশনের।

 

বন্ধ করুন