প্রশান্ত কিশোর। ফাইল ছবি
প্রশান্ত কিশোর। ফাইল ছবি

তৃণমূলকে ভোটে জেতাতে মানুষের করের টাকায় প্রশান্ত কিশোরকে জেড শ্রেণির নিরাপত্তা

  • নবান্ন সূত্রে খবর, দিল্লি নির্বাচনের পরেই পাখির চোখ পশ্চিমবঙ্গ। তাই এরাজ্যে আনাগোনা বাড়বে তাঁর। এর মধ্যে এই নির্বাচনী রণনীতিকারের ওপর হামলার আশঙ্কা রয়েছে বলে খবর গোয়েন্দাদের কাছে।

দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে তাঁর পরামর্শেই ফের বিজেপিকে রুখে দিয়েছেন কেজরিওয়াল। ২০২১-এ তৃণমূলের বৈতরণী পার করতেও বড় ভরসা তিনিই। সেই প্রশান্ত কিশোরকে এবার ‘জেড শ্রেণি’-র নিরাপত্তা দিল পশ্চিমবঙ্গ সরকার। গত ২ ফেব্রুয়ারি নবান্নে স্বরাষ্ট্র দফতরের তরফে জারি এক বিবৃতিতে একথা জানানো হয়েছে।

নবান্ন সূত্রে খবর, দিল্লি নির্বাচনের পরেই পাখির চোখ পশ্চিমবঙ্গ। তাই এরাজ্যে আনাগোনা বাড়বে তাঁর। এর মধ্যে এই নির্বাচনী রণনীতিকারের ওপর হামলার আশঙ্কা রয়েছে বলে খবর গোয়েন্দাদের কাছে। তাই তড়িঘড়ি তার নিরাপত্তার ব্যবস্থা করছে রাজ্য সরকার।

ওদিকে বর্তমানে কোনও রাজনৈতিক দলে নেই প্রশান্ত কিশোর। CAA নিয়ে বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের সঙ্গে বিবাদের পর দল ছেড়েছেন তিনি। তার পর থেকেই তাঁর তৃণমূলে যোগদানের সম্ভাবনা নিয়ে গুঞ্জন চলছে। তার মধ্যে একেবারে জেড শ্রেণির নিরাপত্তা বেশ ইঙ্গিতবহ।

তবে তৃণমূলের নির্বাচনী পরামর্শদাতাকে কেন রাজ্যের সাধারণ করদাতার পয়সায় নিরাপত্তা দেওয়া হবে তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন অনেকে। তাঁদের অভিযোগ, একে দেনার দায়ে ডুবে রাজ্য। তার ওপর প্রশাসনিক বৈঠকের নামে জেলায় জেলায় মুখ্যমন্ত্রীর কার্যত রাজনৈতিক বৈঠকে খরচ হচ্ছে কোটি কোটি টাকা। সঙ্গে রয়েছে মেলা, খেলা, উৎসব। এর মধ্যে প্রশান্ত কিশোরের জন্য জেড শ্রেণির নিরাপত্তা করদাতার টাকার অপব্যয় বলে দাবি তাঁদের।



বন্ধ করুন