ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

হিন্দু হস্টেলের ৮ অস্থায়ী কর্মীর পাশে দাঁড়ালেন প্রেসিডেন্সির পড়ুয়ারা

আবাসিক, প্রাক্তণী ও শুভাকাঙ্খীদের থেকে অনুদান সংগ্রহ করে ৩,০০০ টাকা করে দিলেন প্রত্যেক অস্থায়ী কর্মীকে।


করোনা সংকটের মধ্যেই হস্টেলের অস্থায়ী কর্মীদের পাশে দাঁড়ালেন প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা। প্রত্যেক অস্থায়ী কর্মীকে এককালীন ৩,০০০ টাকা করে দিলেন তাঁরা। লকডাউনের জেরে হস্টেল বন্ধ। তাই সাময়িক সুরাহার জন্য এই ব্যবস্থা বলে ছাত্রদের তরফে জানানো হয়েছে।

ছাত্রদের তরফে আরও জানানো হয়েছে, হস্টেলের আবাসিক, প্রাক্তন ছাত্র ও শুভাকাঙখীদের থেকে এই অনুদান সংগ্রহ করা হয়েছে। হস্টেল বন্ধ থাকায় অস্থায়ী ওই কর্মীরা আর্থিক অনটনে পড়েছেন বলে জানিয়েছেন তাঁরা।

শুভ বিশ্বাস নামে এক ছাত্র জানিয়েছেন, 'আমরা জানি, একটা পরিবারের জন্য ৩,০০০ টাকাটা কিছুই নয়। তবে আমরা ভবিষ্যতেও তাদের সাহায্য করব। আমাদের অনুদান সংগ্রহ চলবে।'

সোমবার হিন্দু হস্টেলের ৮ জন অস্থায়ী কর্মীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে এই টাকা ট্রান্সফার করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা। এরা প্রত্যেকে পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর ও লাগোয়া ওড়িশার বাসিন্দা।

প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার দেবজ্যোতি কোঙার জানিয়েছেন, 'আমাদের ছাত্রীছাত্ররা সামাজিক কাজে সব সময় এগিয়ে থাকে। সেজন্য আমরা গর্বিত'। তবে অনুদান সংগ্রহের কাজ সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংয়ের বিধি মেনেই হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এর আগে হিন্দু হস্টেলের ৮ জন অস্থায়ী কর্মীকে ১,০০০ টাকা করে ত্রাণ দিয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টুডেন্টস কাউন্সিল।

স্টুডেন্টস কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট মিমোসা ঘরাই জানিয়েছেন, 'এটা খুবই ছোট অনুদান। তবে আমরা তাদের পাশে থাকতে চাই।'

সম্প্রতি শিবপুর IIEST (বিই কলেজ)-এর পড়ুয়ারা ৩৫ জন ক্যান্টিক কর্মীকে ২,০০০ টাকা করে সাহায্য করেছেন।




বন্ধ করুন