বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > মুকুলের বিধায়ক পদ খারিজের দাবিতে শুনানি শেষ, সিদ্ধান্তের কথা জানাবেন স্পিকার
মুকুল রায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
মুকুল রায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

মুকুলের বিধায়ক পদ খারিজের দাবিতে শুনানি শেষ, সিদ্ধান্তের কথা জানাবেন স্পিকার

গত ১৭ জানুয়ারি সুপ্রিম কোর্টের তরফে জানানো হয়েছিল, মুকুল রায়ের বিধায়ক পদ খারিজ করা হবে কিনা, তা নিয়ে দু সপ্তাহের মধ্যে স্পিকারকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির চেয়ারম্যান মুকুল রায়ের বিধায়ক পদ খারিজের দাবিতে শুনানিপর্ব শেষ হল শুক্রবার। খুব তাড়াতাড়ি বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় এই বিষয়ে সিদ্ধান্তের কথা জানাবেন। তবে মুকুল রায়ের আইনজীবীর অভিমত, মুকুল রায় বিজেপিতেই আছেন। এখন বিধানসভার অধ্যক্ষ কী বলেন, এখন সেটাই দেখার।

শুনানিপর্ব শেষ হয়ে যাওয়ার পর মুকুল রায়ের আইনজীবী জানান, ‘‌আমরা আমাদের বক্তব্য আগেই জানিয়েছি। বিজেপির তরফে নতুন কোনও উত্তর আসেনি। আজ শুনানি পর্ব শেষ হয়ে গেল। এখন বিধানসভার অধ্যক্ষ তাঁর সময়ের মতন রায় দেবেন।’‌ এরপরই তিনি ফের জানিয়ে দেন, মুকুল রায় কোনও রাজনৈতিক দলে যোগ দেননি। তিনি অন্য রাজনৈতিক দলের মঞ্চে সৌজন্যের খাতিরে গিয়েছিলেন। মুকুল রায় বিজেপিতেই আছেন। বিজেপি মুকুল রায়কে কোনও সাসপেন্ড করেননি।

গত ১৭ জানুয়ারি সুপ্রিম কোর্টের তরফে জানানো হয়েছিল, মুকুল রায়ের বিধায়ক পদ খারিজ করা হবে কিনা, তা নিয়ে দু সপ্তাহের মধ্যে স্পিকারকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। সেই মতো বিধানসভায় শুনানি পর্ব শুরু হয়। বিধানসভার শুনানিতে মুকুল রায় দাবি করেন, তিনি অন্য কোনও রাজনৈতিক দলে যোগ দেননি। আইনজীবী মারফত লিখিতভাবে সেকথা বিধানসভার অধ্যক্ষকে জানিয়েছিলেন মুকুলবাবু। মুকুলবাবুর এই দাবির পরই রাজ্য রাজনীতিতে তোলপাড় পড়ে যায়। প্রশ্ন উঠে, গত বিধানসভা ভোটের পর তৃণমূল ভবনে যে মুকুল রায় ও তাঁর ছেলে শুভ্রাংশু রায় গিয়েছিলেন, তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় যে তাঁদের সাদরে বরণ করে নিলেন, তাহলে সেটা কী ছিল।

বন্ধ করুন