বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > নবান্নের চোদ্দ তলার অগ্নিকাণ্ডে অভিযুক্ত পূর্ত দফতর
নবান্নের ১৪ তলায় অগ্নিকাণ্ড।
নবান্নের ১৪ তলায় অগ্নিকাণ্ড।

নবান্নের চোদ্দ তলার অগ্নিকাণ্ডে অভিযুক্ত পূর্ত দফতর

  • নবান্নের চোদ্দ তলায় মুখ্যমন্ত্রী ও মুখ্যসচিবের দফতর। সেখানে আগুন কী করে লাগল তার তদন্ত দ্রুত সেরে ফেলেন আধিকারিকরা। আর তাতে দায়ী করা হয়েছে পূর্ত দফতরকে।

পূর্ত দফতরের গাফিলতিতেই নবান্নের চোদ্দ তলায় আগুন লেগেছিল। এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে তদন্ত রিপোর্টে। রিপোর্টে বলা হয়েছে, নবান্নের চোদ্দ তলায় বেসরকারি টেলিফোন সংস্থার পরিত্যক্ত কিয়স্ক থেকেই আগুন ছড়ায়। প্রশ্ন উঠছে গুরুত্বপূর্ণ ওই জায়গায় পরিত্যক্ত কিয়স্ক পড়ে রইল কেন?

দুর্গাপুজোর সপ্তমীর দিন সকালে পশ্চিমবঙ্গের প্রশাসনিক সদর দফতর, হাওড়ার নবান্ন ভবনের চোদ্দ তলায় আগুন লাগে। তবে আগুন বেশিদূর ছড়াতে পারেনি। তৎপরতার সঙ্গে অগ্নিনির্বাপক দিয়ে আগুন নিভিয়ে দেন কর্মীরা। কিছুক্ষণের মধ্যে সেখানে পৌঁছয় দমকলও। কিন্তু প্রশ্ন ওঠে, কী করে আগুন লাগল চোদ্দ তলায়? এব্যাপারে তদন্তের নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী।

নবান্নের চোদ্দ তলায় মুখ্যমন্ত্রী ও মুখ্যসচিবের দফতর। সেখানে আগুন কী করে লাগল তার তদন্ত দ্রুত সেরে ফেলেন আধিকারিকরা। আর তাতে দায়ী করা হয়েছে পূর্ত দফতরকে। তদন্তে উঠে এসেছে ওই দিন ঘটনাস্থলে পিচের আস্তরণের ওপর টাইলস বসানোর কাজ চলছিল। এই কাজে উচ্চ তাপমাত্রার বার্নার জ্বালিয়ে পিচকে গলাতে হয়। তখনই অসাবধানতায় পাশের কিয়স্কটিতে আগুন লেগে যায়। কিয়স্কটির ভিতরে বৈদ্যুতির যন্ত্রাংশ ছাড়াও ছিল ২টি এসি। তবে সেগুলো চলত না।

রিপোর্টে প্রশ্ন তোলা হয়েছে, কেন ব্যবহার না হওয়া কিয়স্ক দিনের পর দিন গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় পড়ে রইল? কেন সেটি সরানোর বা মেরামতির উদ্যোগ নিল না কেউ? জবাব দিতে হবে পূর্ত দফতরকে।

 

বন্ধ করুন