বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘‌দুয়ারে নয়, দোকানে রেশন’, গণ–কনভেনশন ডেকে আওয়াজ তুললেন রেশন ডিলাররা
রেশন ডিলারদের বক্তব্য, দুয়ারে নয়, দোকানে রেশন। (ছবিটি প্রতীকী, রাজ কে রাজ/হিন্দুস্তান টাইমস)
রেশন ডিলারদের বক্তব্য, দুয়ারে নয়, দোকানে রেশন। (ছবিটি প্রতীকী, রাজ কে রাজ/হিন্দুস্তান টাইমস)

‘‌দুয়ারে নয়, দোকানে রেশন’, গণ–কনভেনশন ডেকে আওয়াজ তুললেন রেশন ডিলাররা

  • এই পরিস্থিতিতে আজ আবার প্রতিবাদে সরব হন তাঁরা। তাঁদের বক্তব্য, দুয়ারে নয়, দোকানে রেশন।

দুর্গাপুজোর আগেই পাইলট প্রজেক্ট শুরু হয়েছিল ‘‌দুয়ারে রেশন’‌ প্রকল্পের। তারপর সেই প্রকল্প চালুও হয়ে গিয়েছে। এই নিয়ে ডিলারদের একাংশ বিক্ষুব্ধ। কারণ তাঁরা যে দাবি তুলেছিলেন তা সর্বাগ্রে মেনে নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ। এই পরিস্থিতিতে আজ আবার প্রতিবাদে সরব হন তাঁরা। তাঁদের বক্তব্য, দুয়ারে নয়, দোকানে রেশন।

সম্প্রতি রেশন ডিলারদের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন খাদ্য দফতরের আধিকারিকরা। সেখানে মন্ত্রী রথীন ঘোষও ছিলেন। কিন্তু ডিলারদের সঙ্গে বৈঠকে কোনও রফাসূত্রে বেরিয়ে আসেনি। জয়েন্ট ফোরাম ফর ওয়েস্ট বেঙ্গল রেশন ডিলার্সের পক্ষ থেকে মঙ্গলবার নিউটাউনের বিশ্ব বাংলা কনভেনশন সেন্টারে এক গণ–কনভেনশনের আয়োজন করা হয়। এখানেই তাঁরা আওয়াজ তোলেন, ‘‌দুয়ারে নয়, দোকানে রেশন’‌।

এই অনুষ্ঠানে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিশ্বম্ভর বসু জানান, রাজ্যের রেশন ডিলাররা মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে খাদ্য সাথী পরিচালনা করেছে। তিনি বলেন, ‘দুয়ারে রেশন দেওয়া আমাদের পক্ষে সম্ভব নয়। তাই মুখ্যমন্ত্রী এবং খাদ্যমন্ত্রীর কাছে আবেদন রেখেছি আমাদেরকে এই চাপ সৃষ্টি করে দুয়ারে রেশন প্রকল্পে ঠেলে দেওয়া যাবে না।’‌

আজ রেশন ডিলারদের পক্ষ থেকে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়, বলপূর্বক যদি তাঁদের দুয়ারে রেশন পাঠাতে বাধ্য করা হয় তাহলে তাঁরা তা করবেন না। এমনকী তাঁরা এই পরিষেবা থেকে সরে দাঁড়াতে বাধ্য হবেন। গাড়ি নিয়ে যে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল তা তাঁরা মানতে নারাজ। তাই পরিকাঠামো উন্নতি করা প্রয়োজন। এখন দুয়ারে রেশন সম্ভব নয়। দোকানে রেশনই থাক বলছেন তাঁরা।

বন্ধ করুন