বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > জমিদারের মতো ঔদ্ধত্য, লজ্জা লাগছে! সুবীরেশের গ্রেফতারে বিস্ফোরক অধ্যাপক নেতৃত্ব
গ্রেফতার সুবীরেশ ভট্টাচার্য। সংগৃহীত ছবি

জমিদারের মতো ঔদ্ধত্য, লজ্জা লাগছে! সুবীরেশের গ্রেফতারে বিস্ফোরক অধ্যাপক নেতৃত্ব

  • গ্রেফতার হয়েছেন উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুবীরেশ ভট্টাচার্য। তীব্র প্রতিক্রিয়া গোটা রাজ্যের শিক্ষামহলে। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন একাধিক কলেজের শিক্ষকরাও গোটা ঘটনায় অত্যন্ত লজ্জিত। HT Bangla'র কাছে মুখ খুললেন কলেজ ইউনিভার্সিটি টিচার্স অ্যাসোসিয়েশন অফ বেঙ্গলের সাধারণ সম্পাদক।

উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যই এবার সিবিআইয়ের জালে। এসএসসি দুর্নীতি মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে সুবীরেশ ভট্টাচার্যকে। এদিকে খোদ উপাচার্য গ্রেফতার হওয়ার ঘটনায় লজ্জায় মাথা হেঁট হয়ে গিয়েছে অনেকের। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে এখন জোর চর্চা এনিয়ে। শিক্ষামহলের একাংশের দাবি, এবার মুখ দেখাব কী করে?

কলেজ ইউনিভার্সিটি টিচার্স অ্যাসোসিয়েশন অফ বেঙ্গলের সাধারণ সম্পাদক গৌরাঙ্গ দেবনাথ হিন্দুস্তান টাইমস বাংলাকে জানিয়েছেন, ৭-৮ মাস আগে সুবীরেশ ভট্টাচার্যের সঙ্গে দেখা করার জন্য উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের সল্টলেক ক্যাম্পাসে গিয়েছিলাম। মূলত কলেজের প্রিন্সিপালরা কীভাবে অধ্যাপকদের উপর চাপ দিচ্ছেন তা জানাতেই গিয়েছিলাম। কিন্তু নবাব, জমিদারের মতো যে ঔদ্ধত্য তাঁর দেখেছিলাম তাতে আমরাও অবাক হয়ে গিয়েছিলাম। তাঁর ব্যবহার ইদানিং একেবারেই অধ্যাপক সুলভ ছিল না। একেবারে শাসকদলের উদ্ধত নেতাদের মতো তাঁর ব্যবহার। সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতার হয়েছেন খোদ উপাচার্য। মাথা হেঁট হয়ে গেল আমাদের। এবার তো মুখ দেখানো যাবে না! তীব্র প্রতিক্রিয়া অধ্যাপক সংগঠনের নেতৃত্বের।

তবে উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে কান পাতলেও ইদানিং সুবীরেশের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ কানে আসে। কার্যত শাসকদলের সঙ্গে তাঁর অতি ঘনিষ্ঠতা ঘিরেও নানা সময় প্রশ্ন উঠত বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্দরে। এবার তাঁর গ্রেফতারির খবরে অনেকেরই মত, বিশ্ববিদ্যালের নাম ডুবিয়ে দিলেন সুবীরেশ ভট্টাচার্য।

এদিকে সূত্রের খবর, বাগ কমিটির রিপোর্টে নাম ছিল সুবীরেশ ভট্টাচার্যের। ২০১৪ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত সুবীরেশ ভট্টাচার্য এসএসসি চেয়ারম্যানের পদে ছিলেন। সেই সূত্র ধরেই উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে ও তাঁর বাড়িতে হানা দিয়েছিল সিবিআইয়ের টিম।কিন্তু তিনি প্রথম থেকেই কার্যত অসহযোগিতা করছিলেন বলে অভিযোগ।

 

 

বন্ধ করুন