বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > এক মাসে ভুল শোধরানো হোক, ততদিন নেওয়া যাবে না বিল, CESC-কে কড়া বার্তা রাজ্যের
সিএসইসির অস্বাভাবিক চড়া বিলের বিরুদ্ধে কলকাতার রাস্তায় প্রতিবাদ (ছবি সৌজন্য এএনআই)
সিএসইসির অস্বাভাবিক চড়া বিলের বিরুদ্ধে কলকাতার রাস্তায় প্রতিবাদ (ছবি সৌজন্য এএনআই)

এক মাসে ভুল শোধরানো হোক, ততদিন নেওয়া যাবে না বিল, CESC-কে কড়া বার্তা রাজ্যের

  • শনিবারের বিজ্ঞাপনে বিস্তারিত ব্যাখ্যা তো দূর অস্ত, নমো নমো করে মুখ বাঁচানোর পথে হেঁটেছে বিদ্যুৎ সংস্থা।

বিচ্ছিন্ন কোনও ঘটনা নয়, তা ইতিমধ্যে স্পষ্ট। এই অবস্থায় মাত্রাতিরিক্ত বিদ্যুতের বিল নিয়ে সিএসসিইকে 'অ্যাডভাইজরি' পাঠাচ্ছে রাজ্য সরকার। সূত্রের খবর, সেই অ্যাডভাইজরিতে এক মাসের মধ্যে ভুল ঠিক করার নির্দেশ করা হয়েছে। 

জুন মাসের বিদ্যুতের বিল নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে তুমুল বিতর্ক তৈরি হয়েছে। সাধারণত অন্য বছর ওই সময়ে যা বিল আসে, তার থেকে দ্বিগুণ বেশি বিল এসেছে বলে দাবি অনেকের। কারোর কারোর তো আবার অভিযোগ, তিনগুণ বেশি বিল দিতে হচ্ছে। আমজনতা থেকে শুরু করে পরিচিত মুখ - সবাই একই অভিযোগ তুলেছেন। খোদ বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায়কেও ‘মাত্রাতিরিক্ত’ বিল পাঠানো হয়েছে। বিল নিয়ে রোজ অসংখ্য অভিযোগও পাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। 

এই অবস্থায় শুক্রবার সিইএসসি কর্তাদের ডেকে পাঠান বিদ্যুৎমন্ত্রী। কী কারণে এত বিল নেওয়া হচ্ছে, তা নিয়েও জবাবদিহি চান তিনি। শুধু তাই নয়, কোন নিয়মে বিল তৈরি হচ্ছে, কীভাবে তা হিসেবে করা হচ্ছে, তা নিয়ে শহরের অধিক প্রচারিত সংবাদপত্রগুলিতে বিজ্ঞাপন দেওয়ার নির্দেশ দেন তিনি। সেইমতো শনিবার বিজ্ঞাপনও দেওয়া হয়েছে। কিন্তু সেই একই সাফাই গেয়েছে সিএসইসি। একইসঙ্গে সেই বিজ্ঞাপনে বিস্তারিত ব্যাখ্যা তো দূর অস্ত, নমো নমো করে মুখ বাঁচানোর পথে হেঁটেছে বিদ্যুৎ সংস্থা। তাতে আমজনতার ক্ষোভ কতটা মিটবে, তা নিয়ে ধোঁয়াশা আছে। তবে মন্ত্রী শুক্রবারই জানিয়েছেন, গ্রাহকরা সেই ব্যাখ্যায় সন্তুষ্ট না হলে আবারও সিএসসিই আধিকারিকদের তলব করা হবে।

তারইমধ্যে সিএসইসিকে অ্যাডভাইজরি পাঠানো হচ্ছে বলে নবান্ন সূত্রে খবর। তাতে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে, এক মাসের মধ্যে বিলের ভুলত্রুটি ঠিক করতে হবে। ওই সময়ের মধ্যে কোনও গ্রাহকের থেকে বিল নেওয়া যাবে না এবং বিল না মেটাতে পারলে লাইনও কাটা যাবে না বলে কড়া নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে সূত্রের খবর।

বন্ধ করুন