বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > আরজি কর হাসপাতালের ইমার্জেন্সি বিভাগে বিরিয়ানির আসর, অভিযোগ চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে
আরজি কর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল

আরজি কর হাসপাতালের ইমার্জেন্সি বিভাগে বিরিয়ানির আসর, অভিযোগ চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে

  • ইমার্জেন্সি ও ট্রমা কেয়ার ইউনিট দুটোই ঢেলে সাজানো হচ্ছে। বৃহস্পতিবার ১৯ মে আরও প্রায় ১০০ শয্যা নিয়ে নতুন করে চালু হচ্ছে ট্রমা কেয়ার বিভাগ। ট্রমা ইমার্জেন্সিতে রেড, ইয়েলো জোন এবং অবজারর্ভেশন মিলিয়ে বাড়ছে ১৮টি বেড। পাঁচতলার এইচডিইউতে আরও ৮টি শয্যা এবং সেখানেই আরও ২৪টি ট্রমা বেড হচ্ছে।

আরজি কর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চালু হয়েছে হাই ডিপেন্ডেন্সি ইউনিট। ইমার্জেন্সি রোগীদের বিশেষ পরিষেবার জন্যেই এই নয়া ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। কিন্তু চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে সেখানেই বসে বিরিয়ানি খাওয়া, আড্ডা মারার অভিযোগ উঠল! এখানে আধুনিক কার্ডিয়াক মনিটর থেকে সেন্ট্রাল অক্সিজেন পাইপ লাইন চালু হয়েছে। শুরু হয়েছিল রোগী ভর্তিও।

বিষয়টি ঠিক কী ঘটেছে আরজি কর হাসপাতালে?‌ ইমার্জেন্সি রোগী পরিষেবার পরিকাঠামো খতিয়ে দেখতে যান হাসপাতালের এক পদস্থ কর্তা ও তাঁর টিম। কিন্তু ইমার্জেন্সির বিভিন্ন ঘর, বিভাগ দেখে তিনি যখন এইচডিইউতে আসেন, দেখেন ঘরের তালা বন্ধ। স্বাস্থ্যকর্মীদের কাছে জানতে চান, এইচডিইউ বন্ধ কেন? তখনই ক্ষোভের সুরে স্বাস্থ্যকর্মীরা জানান, চিকিৎসকরা এখানে বিরিয়ানি খাচ্ছেন, প্যাকেট ফেলছেন। জীবাণু সংক্রমণ হতে পারে। তাই এইচডিইউ তালা বন্ধ করে রাখা হয়েছে। হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান ডাঃ সুদীপ্ত রায় বলেন, ‘‌বিষয়টির খোঁজখবর নেব।’‌

কী ব্যবস্থা আছে এই বিভাগে?‌ হাসপাতাল সূত্রে খবর, ইমার্জেন্সি ও ট্রমা কেয়ার ইউনিট দুটোই ঢেলে সাজানো হচ্ছে। বৃহস্পতিবার ১৯ মে আরও প্রায় ১০০ শয্যা নিয়ে নতুন করে চালু হচ্ছে ট্রমা কেয়ার বিভাগ। ট্রমা ইমার্জেন্সিতে রেড, ইয়েলো জোন এবং অবজারর্ভেশন মিলিয়ে বাড়ছে ১৮টি বেড। পাঁচতলার এইচডিইউতে আরও ৮টি শয্যা এবং সেখানেই আরও ২৪টি ট্রমা বেড হচ্ছে। আটতলায় বাড়ছে ৪০টি ট্রমা বেড।

ঠিক কী অভিযোগ উঠেছে?‌ অভিযোগ, রোগী পরিষেবা নিরাপদে রাখতেই হাই ডিপেন্ডেন্সি ইউনিট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এখানে চিকিৎসকরা প্রায়ই বিরিয়ানির আসর বসাচ্ছেন, আড্ডা মারছেন। এমনকী এই আসর থেকে যত্রতত্র নোংরা ফেলছেন। সুতরাং ইমার্জেন্সি রোগীর স্বাস্থ্যের মারাত্মক ক্ষতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই শোরগোল পড়ে গিয়েছে।

বন্ধ করুন