বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > সুদীপ্ত সেনের কাছ থেকে ১ দিনে ৮০ কোটি টাকা কেড়ে নিয়েছিলেন মুকুল রায়: মনোজ নাগেল
গ্রেফতারির পর মনোজ নাগেল। ফাইল ছবি
গ্রেফতারির পর মনোজ নাগেল। ফাইল ছবি

সুদীপ্ত সেনের কাছ থেকে ১ দিনে ৮০ কোটি টাকা কেড়ে নিয়েছিলেন মুকুল রায়: মনোজ নাগেল

  • সারদাকাণ্ড প্রকাশ্যে আসার পর প্রথম গ্রেফতার হয়েছিলেন মনোজ নাগেল। তার পর সুদীপ্ত ও দেবযানীকে গ্রেফতার করে রাজ্য সরকার গঠিত SIT. ২০১৩ সালের ১৯ এপ্রিল গ্রেফতার হয়েছিলেন নাগেল।

সারদাকর্তা সুদীপ্ত সেনের কাছ থেকে এক দিনে ৮০ কোটি টাকা কেড়ে নিয়েছিলেন তৃণমূল নেতা মুকুল রায়। এমনই বিস্ফোরক দাবি করলেন সারদাকাণ্ডে গ্রেফতার প্রথম ব্যক্তি তথা সংস্থার প্রাক্তন ডিরেক্টর মনোজ নাগেল। তাঁর প্রশ্ন, সুদীপ্ত সেনের কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা নিয়ে কী ভাবে বহাল তবিয়তে ঘুরে বেড়াচ্ছেন মুকুল? কেন তাঁর বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ করছে না সিবিআই। এব্যাপারে প্রয়োজনে আদালতে গোপন জবানবন্দি দিতেও তিনি তৈরি বলে জানিয়েছেন নাগেল।

সারদাকাণ্ড প্রকাশ্যে আসার পর প্রথম গ্রেফতার হয়েছিলেন মনোজ নাগেল। তার পর সুদীপ্ত ও দেবযানীকে গ্রেফতার করে রাজ্য সরকার গঠিত SIT. ২০১৩ সালের ১৯ এপ্রিল গ্রেফতার হয়েছিলেন নাগেল। তাঁর গ্রেফতারি নিয়েও বিস্ফোরক দাবি করেছেন সারদাকাণ্ডে এই অভিযুক্ত। এক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘সুদীপ্ত সেন পলাতক হওয়ার পর আমি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করি। তিনি মুকুল রায়ের সঙ্গে দেখা করতে বলেন। এর পরই বিধাননগরের তৎকালীন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার আমাকে ডেকে পাঠান। তার পর গ্রেফতার করেন আমাকে।’

নাগেলের বিস্ফোরক দাবি, ‘সুদীপ্ত সেন কলকাতা ছাড়ার সময় সঙ্গে ৮০ কোটি টাকা নিয়ে গিয়েছিলেন। সুদীপ্ত সেন গ্রেফতার হওয়ার পর সেই টাকা ছিনিয়ে নেন মুকুল রায়। একদিনেই উনি ৮০ কোটি টাকা সুদীপ্ত সেনের কাছ থেকে নিয়েছিলেন। আর মোট কত নিয়েছিলেন তার কোনও হিসাব নেই। তিনি কোটি কোটি টাকা নিয়ে বহাল তবিয়তে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। এর একটা বিহিত হওয়া দরকার।’

তাঁর দাবি, সারদাকাণ্ডের প্রকৃত তদন্ত হওয়া দরকার। আমি আদালতে গোপন জবানবন্দি দিতে তৈরি। সাক্ষীদের সুরক্ষার ব্যবস্থা করুক আদালত।

নাগেলের অভিযোগ নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিতে অস্বীকার করেছে তৃণমূল। বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু বলেছেন, ‘মুকুল রায়ের কৃত কর্মের দায় বিজেপির নয়। তিনি তৃণমূলের গুপ্তচর হয়ে বিজেপিতে এসেছিলেন। আবার ফিরে গিয়েছেন।’

 

বন্ধ করুন