বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ডিসেম্বরেই শিয়ালদহে চালু মেট্রো পরিষেবা, অপেক্ষা শুধু রেলওয়ে সেফটির অনুমোদনের
শিয়ালদহ স্টেশনে মেট্রো কর্তারা 
শিয়ালদহ স্টেশনে মেট্রো কর্তারা 

ডিসেম্বরেই শিয়ালদহে চালু মেট্রো পরিষেবা, অপেক্ষা শুধু রেলওয়ে সেফটির অনুমোদনের

  • আগামী এক মাসের মধ্যেই যাবতীয় কাজ শেষ হবে শিয়ালদহে। তখন কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটির অনুমোদন মিললেই মেট্রো চলাচল শুরু হবে শিয়ালদহ পর্যন্ত।

কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটির অনুমোদন মিললেই মেট্রে রেল চলবে শিয়াদহ স্টেশন পর্যন্ত। ডিসেম্বরেই এই স্টেশনে মেট্রো পরিষেবা চালু হতে পারে বলে জানা গিয়েছে। শিয়াদহ মেট্রো স্টেশনের কাজ প্রায় শেষ। এদিকে মেট্রোর ফলে সমগ্র শিয়াদহ রেল স্টেশনের চিত্রটাও বদলে যেতে চলেছে। স্টেশন সংলগ্ন এলাকায় নতুন করে সাজছে পার্কিং স্পেস। জানা গিয়েছে আগামী এক মাসের মধ্যেই যাবতীয় কাজ শেষ হবে। তখন কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটির অনুমোদন মিললেই মেট্রো চলাচল শুরু হবে শিয়ালদহ পর্যন্ত।

জানা গিয়েছে, শিয়ালদহ স্টেশনে যাত্রীদের যাতায়াতে সুবিধার জন্য থাকছে ৯টি সিঁড়ি। ২৮টি এসকালেটর থাকছে। এছাড়াও স্টেশনে থাকছে ২৭টি টিকিট কাউন্টার। বিশেষভাবে সক্ষমদের জন্য আলাদা টিকিট কাউন্টার থাকছে। স্টেশনে যাতায়াতের সুবিধার জন্য থাকছে ৫টি লিফট। মেট্রো স্টেশনে ৩টি প্ল্যাটফর্ম রাথা হয়েছে। এই স্টেশন চালু হলে কলকাতা ও শহরতলির গণপরিবহণ ব্যবস্থা অনেকটা পালটে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।

এদিকে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর প্রান্তিক স্টেশন হাওড়ার কাজ শেষ পর্যায়ে চলছে। এই স্টেশনের দৈর্ঘ ১১০ মিটার, প্রস্থ ৬৫ মিটার ও গভীরতা ৩৩ মিটার। এটাই এশিয়ার গভীরতম মেট্রো স্টেশন বলে দাবি করেছেন ইঞ্জিনিয়াররা। স্টেশন থেকে দুটি টানেল গঙ্গার তলা দিয়ে বড়বাজার এলাকায় উঠেছে। দুটি টানেলের দৈর্ঘ প্রায় ৫৫০ মিটার। এই দুটি টানেলের কাজ ২০১৬ সালে শুরু হয়েছিল। ২০১৯ সালে এই কাজ শেষ হয়। স্টেশনের কাজ পুরোপুরি শেষ হলে মেট্রো রেক দিয়ে ট্রায়াল রান শুরু হবে। ট্রায়াল রান সফল হলে আগামী বছর থেকেই চালু হতে পারে পরিষেবা।

বন্ধ করুন