বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > কসবার শিবিরে উদ্ধার হওয়া শিশি - লেবেল কোভিশিল্ডের নয়, জানাল সেরাম ইন্সটিটিউট
বাঁ দিকে দেবাঞ্জনের ভুয়ো টিকার ভায়াল, ডান দিকে আসল টিকার ভায়াল। 
বাঁ দিকে দেবাঞ্জনের ভুয়ো টিকার ভায়াল, ডান দিকে আসল টিকার ভায়াল। 

কসবার শিবিরে উদ্ধার হওয়া শিশি - লেবেল কোভিশিল্ডের নয়, জানাল সেরাম ইন্সটিটিউট

  • তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, ওই শিশি যে কোভিশিল্ডের নয় তা হাতে ধরেই বোঝা গিয়েছিল। শিশির ওপরে কোভিশিল্ডের স্টিকার তুলতে বেরিয়ে পড়েছিল অ্যামিকোসিন নামে একটি ইনজেকশনের লেবেল।

ভুয়ো IAS দেবাঞ্জন দেবের দেওয়া টিকা কোভিশিল্ড নয়। বৃহস্পতিবার সিআইডিকে চিঠি দিয়ে স্পষ্ট করল কোভিশিল্ড নির্মাতা সংস্থা সেরাম ইন্সটিটিউট। তবে ওই শিশির মধ্যে কী ছিল তা জানাতে পারেনি তারা।

কসবায় দেবাঞ্জনের ভুয়ো টিকাকরণ শিবির থেকে উদ্ধার হওয়া শিশি পরীক্ষার জন্য পুনেতে পাঠিয়েছিল সিআইডি। সেই শিশি পরীক্ষা করে সেরাম ইন্সটিটিউট জানিয়েছে ওই শিশি বা লেবেল কোনওটিই তাদের বানানো নয়। ফলে দেবাঞ্জনের শিবির থেকে যে কোভিশিল্ড দেওয়া হয়নি তা ১০০ শতাংশ নিশ্চিত হওয়া গেল।

তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, ওই শিশি যে কোভিশিল্ডের নয় তা হাতে ধরেই বোঝা গিয়েছিল। শিশির ওপরে কোভিশিল্ডের স্টিকার তুলতে বেরিয়ে পড়েছিল অ্যামিকোসিন নামে একটি ইনজেকশনের লেবেল। কিন্তু আদালতে বিষয়টি প্রমাণ করতে সেরাম ইন্সটিটিউটের কাছ থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করা দরকার ছিল।

ওই শিশিতে আদৌ অ্যামিকোসিন ছিল কি না তা জানতে ফরেন্সিক ল্যাবরেটরিতে নমুনা পরীক্ষায় পাঠিয়েছে সিআইডি। দেবাঞ্জন জানিয়েছিল, বাগড়ি মার্কেট থেকে ওই ওষুধগুলি কিনেছিল সে। সেই দোকানের মালিকের সঙ্গে আগেই যোগাযোগ করেছে সিআইডি। এবার ফরেন্সিক ল্যাবরেটরির রিপোর্ট এলে বোঝা যাবে ১০০০ মানুষের দেহে টিকার নামে ঠিক কী দিয়েছে দেবাঞ্জন।

 

বন্ধ করুন