বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > সায়ন্তনের পথে একাধিক BJP বিধায়ক, ছাড়লেন দলের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ, কারণটা কী?
সায়ন্তন বসু, বিজেপি নেতা ফাইল ছবি

সায়ন্তনের পথে একাধিক BJP বিধায়ক, ছাড়লেন দলের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ, কারণটা কী?

  • দলের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি করার চেষ্টা করছেন বিধায়কদের একাংশ?

একেবারে যেন গৃহযুদ্ধ লেগে গিয়েছে গেরুয়া শিবিরের অন্দরে। সম্প্রতি রাজ্য কমিটি থেকে বাদ পড়ার পরে কার্যত গোঁসা হয়েছিল সায়ন্তন বসুর। তৃণমূল নেতারাও দেখা করেছিলেন তাঁর সঙ্গে। এদিকে আগেই দলের হোয়াটসঅ্য়াপ গ্রুপ ছেড়েছিলেন তিনি। এবার সায়ন্তনের দেখানো পথে হাঁটলেন বিজেপির এক ঝাঁক বিধায়ক। সেই তালিকায় রয়েছেন বনগাঁ উত্তরের বিজেপি বিধায়ক অশোক কীর্তনিয়া, হরিণঘাটার বিজেপি বিধায়ক অসীম সরকার, গাইঘাটার বিজেপি বিধায়ক সুব্রত ঠাকুর, এমনকী রানাঘাট দক্ষিণের বিজেপি বিধায়ক মুকুটমণি অধিকারীও।

এদিকে এভাবে দল বেঁধে হোয়াটস অ্য়াপ গ্রুপ ছাড়াকে কেন্দ্র করে চূড়ান্ত শোরগোল পড়েছে দলের অন্দরে। তবে কি এবার দলের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি করার চেষ্টা করছেন বিধায়কদের একাংশ? কিন্তু ঠিক কী কারণে দলের হোয়াটস অ্যাপ গ্রুপ ছাড়লেন তাঁরা? দলের একাংশের মতে, রাজ্য কমিটির রদবদল নিয়ে একেবারে সন্তুষ্ট নয় দলের অনেকেই। ইতিমধ্যেই নানা কথা উঠতে শুরু করেছে। এদিকে এর সঙ্গেই মতুয়াদের প্রতিনিধিত্ব রাজ্য কমিটিতে নেই বলে অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে। তবে মতুয়াদের একটা বড় অংশ এবারের ভোটে বিজেপির পালে হাওয়া তুলতে সহায়তা করেছিল। কিন্তু রাজ্য কমিটিতে সেই মতুয়াদের প্রতিনিধিত্ব না থাকাকে কেন্দ্র করেই এবার দলের হোয়াটসঅ্য়াপ গ্রুপ ছাড়লেন বিধায়কদের একাংশ। এমনটাই মনে করছেন অনেকে। দলের রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের সংক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়া, নতুন কমিটি হলে মনোমালিন্য হয়।

তবে হোয়াটসঅ্য়াপ গ্রুপ ছাড়া নিয়ে বিশেষ কোনও মন্তব্য করতে চাইছেন না বিধায়কদের একাংশ। মুকুটমণি অধিকারী সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ভোট পরবর্তী সময়ের কমিটি নিয়ে পিছিয়ে পড়া মানুষ খুশি নয়। তবে বনগাঁ উত্তরের বিজেপি বিধায়ক অশোক কীর্তনিয়া এ নিয়ে মন্তব্য করত চাননি।

বন্ধ করুন