বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > মাইসুরুতে খুন করে ফিরছিল মালদহের বাড়িতে, কলকাতা বিমানবন্দর থেকে ধৃত শার্প শুটার
ভিনরাজ্যে খুন করে মালদহে ফিরছিল, দমদম বিমানবন্দর থেকে ধৃত শার্প শুটার। ছবি সৌজন্যে হিন্দুস্তান টাইমস।
ভিনরাজ্যে খুন করে মালদহে ফিরছিল, দমদম বিমানবন্দর থেকে ধৃত শার্প শুটার। ছবি সৌজন্যে হিন্দুস্তান টাইমস।

মাইসুরুতে খুন করে ফিরছিল মালদহের বাড়িতে, কলকাতা বিমানবন্দর থেকে ধৃত শার্প শুটার

  • ভিনরাজ্যের ব্যবসায়ীকে খুন করে গা ঢাকা দেওয়ার জন্য কলকাতায় এসেছিল।

ভিনরাজ্যের ব্যবসায়ীকে খুন করে গা ঢাকা দেওয়ার জন্য কলকাতায় এসেছিল। মালদহের গ্রামের বাড়ি যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল। তবে শেষরক্ষা হল না। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে শুক্রবার দমদম বিমানবন্দর চত্বর থেকেই গ্রেফতার করা হল শার্প শুটারকে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই অভিযুক্তের নাম সইফুদ্দিন মিঞা। মালদহে গ্রামের বাড়িতে যাওয়ার জন্য কলকাতায় এসেছিল সে। পুলিশ সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, গুলি করে একাধিক ব্যক্তিকে খুন করার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

অভিযোগ উঠেছে, বেশ কয়েকদিন আগেই মাইসুরুর এক ব্যক্তিকে খুন করে গা ঢাকা দিতে কলকাতায় এসেছিল সইফুদ্দিন। মাইসুর পুলিশ সে বিষয় জানতে পেরে বিমানবন্দর থানার সঙ্গে যোগাযোগ করে। তারপর সমস্ত ঘটনা জানানো হয়। বিমানবন্দর থেকে বেরোনোর সময় সইফুদ্দিনকে গ্রেফতার করে বিমানবন্দর থানার পুলিশ। শনিবার অভিযুক্তকে আদালতে তুলে ট্রানজিট রিমান্ডে নেয় কর্ণাটক পুলিশ। তারপর অভিযুক্তকে নিয়ে মাইসুরুর উদ্দেশে রওনা দেয় পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, চলতি মাসের ২৪ তারিখে তিনজন সঙ্গীকে নিয়ে মুম্বই থেকে ট্রেনে করে মাইসুরুতে গিয়েছিল সইফুদ্দিন। সেখানে গিয়ে একটি গয়নার দোকানে লুঠপাট চালায়। সেই সময় এই ঘটনার প্রতিবাদ করেন দোকানের মালিক। পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে তাঁর উপর গুলি চালায় সইফুদ্দিন। ঘটনাস্থলেই রক্তাক্ত অবস্থায় লুটিয়ে পড়ে মৃত্যু হয় দোকানদারের। এই খুনের ঘটনার পরই তদন্ত শুরু করে কর্নাটক পুলিশ। 

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, খুনের পর পুনরায় মুম্বই ফিরে আসে সইফুদ্দিনরা। গা ঢাকা দেওয়ার জন্য কলকাতার উদ্দেশে রওনা দেয় অভিযুক্ত। সেই অনুযায়ী কর্নাটক পলিশ এনএসসিবিআই বিমানবন্দর থানার পুলিশকে সম্পূর্ণ বিবরণ দেয়। সেইমতো বিমানবন্দর চত্বরে ওত পেতে অভিযুক্তের জন্য অপেক্ষা করছিলেন তদন্তকারী আধিকারিকরা। অবশেষে বিমানবন্দর চত্বর থেকে বেরোনোর সময় গ্রেফতার করা হয় তাকে।

বন্ধ করুন