বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > বিজেপির বড় মিছিল হওয়ার থেকে আমি সিপিএমের বড় মিছিল হলে খুশি হই: সৌগত রায়
সৌগত রায়। ফাইল ছবি। সৌজন্যে - গুগল

বিজেপির বড় মিছিল হওয়ার থেকে আমি সিপিএমের বড় মিছিল হলে খুশি হই: সৌগত রায়

  • বুধবার বিকেলে সৌগতবাবুকে বলতে শোনা যায়, ‘পশ্চিমবঙ্গে বিরোধী পরিসর দখল করেছিল বিজেপি। গত বিধানসভা নির্বাচনে সিপিএম একদমই তার বাইরে চলে গিয়েছিল। একটাও আসন পায়নি।

বিজেপির বড় মিছিল হওয়ার থেকে আমি সিপিএমের বড় মিছিল হলে খুশি হই। মঙ্গলবার কলকাতার ধর্মতলায় বাম ছাত্র – যুবদের ‘ইনসাফ সভা’র পর এমনই মন্তব্য করলেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। এদিন সংবাদমাধ্যমের কাছে তিনি দাবি করেন, ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বামেরা।

বুধবার বিকেলে সৌগতবাবুকে বলতে শোনা যায়, ‘পশ্চিমবঙ্গে বিরোধী পরিসর দখল করেছিল বিজেপি। গত বিধানসভা নির্বাচনে সিপিএম একদমই তার বাইরে চলে গিয়েছিল। একটাও আসন পায়নি। সেখান থেকে ছাত্র – যুবদের হাত ধরে সিপিএম ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে। বিজেপির নবান্ন অভিযান ব্যর্থ হওয়ার পরেই ওরা একটা ভালো অভিযান করলেন।

আমার মতে সিপিএম অত্যন্ত খারাপ। কিন্তু ধর্মনিরপেক্ষ শক্তি তো। বিজেপির বড় মিছিল হওয়ার থেকে আমি সিপিএমের বড় মিছিল হলে খুশি হই। ওরা গণতন্ত্রে বিশ্বাস না করলেও ধর্মনিরপেক্ষ। মন্দির মসজিদের রাজনীতি করে না’।

জবাবে বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার বলেন, ‘এটা তো ফিশফ্রাই জোট। গতকাল তো আপনারা দেখেছেন। মিছিল চলতে চলতে সভার স্থান পরিবর্তন হয়ে গেল। বামপন্থীদের কোনও ভাবে পুলিশ বাধা দিল না। বামপন্থীদের ভোট বাড়ানোর চেষ্টা করছে তৃণমূল। দু’টো দলই ছদ্ম ধর্মনিরপেক্ষ। আমরা প্রকৃত ধর্মনিরপেক্ষ। ওদের ২ জনের হিডেন এজেন্ডা এক। ভারতবর্ষকে টুকরো করা। পশ্চিমবঙ্গকে বৃহত্তর বাংলাদেশ করা।’

এই নিয়ে সিপিএম কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সুজন চক্রবর্তী বলেন, ‘ওনার কথার কোনও ঠিক ঠিকানা নেই। কয়েকদিন আগে সিপিএমের পিঠের চামড়া দিয়ে জুতো বানাবেন বলেছিলেন। বয়স হয়েছে। কী বলেন, ঠিক ঠিকানা থাকে না।’

 

বন্ধ করুন