বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > রয়েছে বৃষ্টির ভ্রুকূটি, কবে থেকে রাজ্যে চাদর-কম্বল বের করতে হবে?
 (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
 (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

রয়েছে বৃষ্টির ভ্রুকূটি, কবে থেকে রাজ্যে চাদর-কম্বল বের করতে হবে?

দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে দু'এক পশলা বৃষ্টিপাত হতে পারে। তবে সেই বৃষ্টি বেশিক্ষণ স্থায়ী হবে না।

দক্ষিণ–পূর্ব বাংলাদেশে একটি ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে। এর ফলে দক্ষিণবঙ্গে আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি থাকবে। এই ঘূর্ণাবর্তের জেরেই দু'এক পশলা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে দক্ষিণবঙ্গে। তবে সোমবার থেকেই আবহাওয়ার পরিবর্তন হওয়া শুরু হয়ে যাচ্ছে। গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে অনুভূত হবে হালকা শীতের আমেজ।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, সোমবার থেকে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে আবহাওয়ার বদল হতে চলেছে। তবে বৃষ্টি যে হবেই না, সেকথা এখনই বলা যাচ্ছে না। দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে দু'এক পশলা বৃষ্টিপাত হতে পারে। তবে সেই বৃষ্টি বেশিক্ষণ স্থায়ী হবে না। রাতের দিক থেকে হালকা শীতের আমেজ তৈরি হবে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে। কয়েকদিন এই ধরনের হালকা শীতের আমেজ অনুভূত হবে দক্ষিণবঙ্গজুড়ে। আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, এদিন কলকাতার আকাশ আংশিক মেঘলাই রয়েছে। কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩১ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নীচে থাকবে। অন্যদিকে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৩ ডিগ্রির আশেপাশে ঘোরাফেরা করবে। তবে বাতাসে আর্দ্রতার পরিমাণ ৯৮ শতাংশ থাকতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

এদিকে আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, সোমবার উত্তরবঙ্গে কিছু জেলায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি ও কালিম্পংয়ের কিছু অংশে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। সেইসঙ্গে কোচবিহার, আলিপুরদুয়ারে হালকা বৃষ্টিপাত হতে পারে। তবে মালদহ ও দুই দিনাজপুরে বৃষ্টিপাতের কোনও সম্ভাবনা নেই বলে আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস।


বন্ধ করুন