ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

তৃৃণমূলে ফেরা সম্ভব নয়, নড্ডার সঙ্গে ফোনে সক্রিয় হওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ শোভনের

  • নাম না প্রকাশের শর্তে বিজেপির এক রাজ্যনেতা জানিয়েছেন, শোভন চট্টোপাধ্যায়কে গোটা পশ্চিমবঙ্গের নেতা হিসাবে তুলে ধরতে চায় বিজেপি।

পুরভোটের মুখে শোভন চট্টোপাধ্যায়কে নিয়ে ফের সরগরম হয়ে উঠল রাজনীতি। রত্না দাসের হাতে তৃণমূল বেহালা পূর্ব কেন্দ্রের দায়িত্ব তুলে দেওয়ার পরেই নড়েচড়ে বসলেন শোভন ও তাঁর বান্ধবী। সূত্রের খবর, মঙ্গলবার শোভনের সঙ্গে কথা হয়েছে বিজেপি সভাপতি জেপি নড্ডার। পুরভোটে বিজেপির হয়ে ময়দানে নামতে সবুজ সংকেত দিয়েছেন শোভন। ওদিকে এদিন দুপুরে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক করেন শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বান্ধবী। সূত্রের খবর তিনি পার্থকে জানিয়েছেন, রত্নার দায়িত্ববৃদ্ধির পর তৃণমূলের হয়ে আর মাঠে নামা সম্ভব নয় শোভনের।

গত সপ্তাহে শোভনের কেন্দ্র বেহালা পূর্বের দায়িত্ব রত্না চট্টোপাধ্যায়ের হাতে তুলে দিতেই তেলে বেগুনে জ্বলে ওঠেন শোভন। সূত্রের খবর, এর পরই ফের ময়দানে নামার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। সূত্রের খবর, এই নিয়ে মঙ্গলবার বিজেপি সভাপতির সঙ্গে কথাও হয়ে গিয়েছে তাঁর। সব ঠিক থাকলে কলকাতা পুরসভা নির্বাচনে বিজেপির মুখ হতে চলেছেন তিনি।

নাম না প্রকাশের শর্তে বিজেপির এক রাজ্যনেতা জানিয়েছেন, শোভন চট্টোপাধ্যায়কে গোটা পশ্চিমবঙ্গের নেতা হিসাবে তুলে ধরতে চায় বিজেপি। বেহালা বা কলকাতা নয়, গোটা রাজ্যে সংগঠনের ভার দিতে চায় তার কাঁধে।

ওদিকে এদিনই তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করেন শোভনের বান্ধবী। প্রায় ২ ঘণ্টার বৈঠক শেষে বেরিয়ে তিনি বিশেষ কিছু বলতে রাজি হননি। তবে সূত্রের খবর, শোভনের পক্ষে যে আর তৃণমূলে ফেরা সম্ভব নয় তা স্পষ্ট করে দিয়েছেন তিনি। ফলে পুরভোটের মুখে ফের একবার জমজমাট শোভন-রঙ্গ।


বন্ধ করুন