বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > SSC: দুর্নীতিগ্রস্তদের কলার ধরে নিয়ে যাওয়া উচিত, পর্যবেক্ষণ আদালতের
 কলকাতা হাইকোর্ট (HT_PRINT)

SSC: দুর্নীতিগ্রস্তদের কলার ধরে নিয়ে যাওয়া উচিত, পর্যবেক্ষণ আদালতের

  • বিচারপতি সুব্রত তালুকদার ও বিচারপতি আনন্দ কুমার মুখোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ স্পষ্ট জানিয়ে দেয়, নির্দিষ্ট তথ্য প্রমাণ থাকলে আদালত সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিতেই পারে। আর্থিক দুর্নীতি খুঁজে বের করার ক্ষেত্রে সিঙ্গল বেঞ্চের নির্দেশে কোনও ভুল নেই।

এসএসসিতে গ্রুপ সি নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় নতুন করে এফআইআরের নির্দেশ বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের সিঙ্গল বেঞ্চের। পাশাপাশি সিবিআইকে তদন্তের অগ্রগতি সংক্রান্ত প্রাথমিক রিপোর্ট ২০ মে পেশ করার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। এই প্রসঙ্গে বিচারপতির পর্যবেক্ষণ, ‘‌দুর্নীতিগ্রস্তদের কলার ধরে নিয়ে যাওয়া উচিত সিবিআইয়ের।’‌

এই প্রসঙ্গে বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় সিবিআইকে নির্দেশ দিয়েছেন, সিবিআই যেকোনও প্রভাবশালীকে জেরা করতে পারেন। যেকোনও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বকে জেরা করতে পারে সিবিআই। তাঁরা যদি সহযোগিতা না করেন, তাহলে তাদের হেফাজতে নিতে পারে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। একইসঙ্গে বিচারপতি জানান, সিবিআই ৫৪২ জনের ভুয়ো সুপারিশপত্র হাতে নেবে। বিতর্কিতভাবে নিযুক্ত ৫৪২ জনের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করতে পারে সিবিআই। এই বিষয়ে জেলার পুলিশ সুপারদের সাহায্য করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এদিন আদালতের তরফে উপদেষ্টা কমিটির পাঁচ সদস্যকে সম্পত্তির হিসাব দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ২০ মে দুপুর ২টোর মধ্যে সম্পত্তির হিসাব দিতে হবে।

উল্লেখ্য, ইতিমধ্যে ডিভিশন বেঞ্চের তরফে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, এসএসসি সংক্রান্ত যাবতীয় মামলা সিঙ্গল বেঞ্ত শুনতে পারবে। এরপরই এসএসসি সংক্রান্ত যেসব মামলা আটকে ছিল, সেই সব মামলা নিয়ে মামলাকারীর আইনজীবীরা বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের এজলাসে যায়। বিচারপতি সেই সময় একই ধরনের নির্দেশ দেওয়া মামলাগুলিকে একসঙ্গে নেন ও রায় দেন। এর আগে বিচারপতি সুব্রত তালুকদার ও বিচারপতি আনন্দ কুমার মুখোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ স্পষ্ট জানিয়ে দেয়, নির্দিষ্ট তথ্য প্রমাণ থাকলে আদালত সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিতেই পারে। আর্থিক দুর্নীতি খুঁজে বের করার ক্ষেত্রে সিঙ্গল বেঞ্চের নির্দেশে কোনও ভুল নেই।

বন্ধ করুন