বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Partha Chatterjee: পার্থর উপর নজরদারি চলছিল এপ্রিল থেকেই! ED-র দাবি ঘিরে বাড়ছে রহস্য
পার্থ চট্টোপাধ্যায় (HT_PRINT)

Partha Chatterjee: পার্থর উপর নজরদারি চলছিল এপ্রিল থেকেই! ED-র দাবি ঘিরে বাড়ছে রহস্য

  • গত শুক্রবার পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে যখন তল্লাশি অভিযান শুরু হয়, তখন তদন্তকারীদের হাতে আসে এক মহিলার ছবি। ছবিটি ছিল অর্পিতার। ছবিতে লেখা ছিল – ‘অর্পিতা ডায়মন্ড পার্ক’। পার্থবাবুকে সেই ছবি দেখিয়ে পরিচয় জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেছিলেন, ‘আমার সহকর্মী, কাছেই থাকেন।’

গত এপ্রিল মাসে এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে এফআইআর করেছিল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই। এই সময়েই স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে মামলা রুজু করেছিল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টোরেটও। সেই সময় থেকেই রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী তথা বর্তমান শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং তাঁর ঘনিষ্ঠ ব্যক্তিদের উপর নজর রেখে চলেছিলেন তদন্তকারীরা। সেই সময়ই টালিগঞ্জ করুণাময়ীতে ডায়মন্ড সিটি আবাসনের একটি ফ্ল্যাটে নিয়মিত যাতায়াত করতে দেখতে পেয়েছিলেন তদন্তকারীরা। যাঁর ফ্ল্যাটে পার্থবাবু যেতেন, সেই ব্যক্তি সম্পর্কেও খোঁজ নেন তদন্তকারীরা। সেই ব্যক্তি হলেন অভিনেতা অর্পিতা মুখোপাধ্যায়।

গত শুক্রবার পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে যখন তল্লাশি অভিযান শুরু হয়, তখন তদন্তকারীদের হাতে আসে এক মহিলার ছবি। ছবিটি ছিল অর্পিতার। ছবিতে লেখা ছিল – ‘অর্পিতা ডায়মন্ড পার্ক’। পার্থবাবুকে সেই ছবি দেখিয়ে পরিচয় জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেছিলেন, ‘আমার সহকর্মী, কাছেই থাকেন।’ এদিকে সেই ছবি ছাড়া পার্থবাবুর বাড়ি থেকে উদ্ধার হয় বেশ কয়েকটি সাদা কাগজ। তাতেও লেখা ছিল অর্পিতার নাম। নামের পাশে কোনও কোনও পাতায় লেখা – ‘ওয়ান সিআর’; কোনও পাতায় আবার লেখা ‘ফোর সিআর’। সেই দেখেই তদন্তকারীদের সন্দেহ হয় যে এই দুর্নীতির সঙ্গে যুক্ত কোটি কোটি টাকা। কাগজে লেকা ‘সিআর’ আদতে কোটি।

এর পরেই অর্পিতার ডায়মন্ড পার্কের বাড়িতে হানা দিয়েছিলেন তদন্তকারীদের দল। সেখান থেকে উদ্ধার হয়েছ প্রায় সাড়ে ২২ কোটি টাকা নগদ, ৫৪ লাখ টাকার বৈদেশিক মুদ্রা, ৭৯ লাখ টাকার সোনার গয়না, আটটি সম্পত্তির নথি। এই আবহে তদন্তকারী অফিসাররা মনে করছেন, পার্থ-ঘনিষ্ঠ আরও অনেকের কাছে টাকা আছে। এই আবহে তদন্তকারীদের নজরে বোলপুরবাসী এক শিক্ষিকা। এদিকে ইডির অভিযোগ, নিয়োগ দুর্নীতিতে আরও ‘প্রভাবশালী’রা জড়িত আছেন। তাঁদের কাছ থেকে বেআইনি ভাবে নিয়োগের জন্য পার্থর কাছে সুপারিশ এসেছিল বলে দাবি তদন্তকারীদের।

বন্ধ করুন