বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Membership: পঞ্চায়েত–লোকসভা নির্বাচন লক্ষ্য, এবার নয়া পদ্ধতিতে সদস্য সংগ্রহ বিজেপির
বিজেপির পতাকা (HT_PRINT)

Membership: পঞ্চায়েত–লোকসভা নির্বাচন লক্ষ্য, এবার নয়া পদ্ধতিতে সদস্য সংগ্রহ বিজেপির

  • মিসড কল দিয়ে সদস্য সংগ্রহ করে বিশেষ লাভ হয়নি বিজেপির। বরং হতাশ হতে হয়েছে। এবার এই কল সেন্টারের মাধ্যমে সদস্য সংখ্যা কতটা বাড়বে তা নিয়েও সন্দেহে রয়েছেন আদি নেতারা। এখন বহু হেভিওয়েট নেতারাই বিজেপি ছেড়েছেন। একুশে জুলাই কেউ কেউ তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিতে পারেন। একইসঙ্গে দল ছেড়েছেন অনেক কর্মী–সমর্থকও।

একুশের নির্বাচনের পর থেকে সংগঠন ক্রমশ তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। প্রতিটি নির্বাচনে হারতে শুরু করেছে বঙ্গ–বিজেপি। গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে আড়াআড়িভাবে ভাগ হয়ে গিয়েছে সংগঠন। বহু নেতা–কর্মী বসে গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সদস্য সংখ্যা বাড়াতে চায় রাজ্য–বিজেপি। একুশের নির্বাচনের আগে মিসড কলের মাধ্যমে সদস্য সংগ্রহ অভিযানে নেমেছিল বঙ্গ বিজেপি। কিন্তু নির্বাচনের পর দেখা গিয়েছে, যাঁরা সদস্য হয়েছিলেন তাঁদের অনেকেরই দলের সঙ্গে কোনও সম্পর্ক রাখেনি।

নয়া পরিকল্পনা কী বিজেপির?‌ সূত্রের খবর, এখন বহু হেভিওয়েট নেতারাই বিজেপি ছেড়েছেন। একুশে জুলাই কেউ কেউ তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিতে পারেন। একইসঙ্গে দল ছেড়েছেন অনেক কর্মী–সমর্থকও। তাতে সংগঠন নড়বড়ে হয়ে গিয়েছে। এই নিয়ে রীতিমত অস্বস্তিতে বঙ্গ–বিজেপি। আর বছর ঘুরলেই পঞ্চায়েত নির্বাচন। আর তারপর লোকসভা। তাই এবার নয়া পরিকল্পনা বিজেপির কল সেন্টার।

বিষয়টি ঠিক কী ঘটতে চলেছে?‌ বিজেপি সূত্রে খবর, তথ্য প্রযুক্তিকে হাতিয়ার করে নতুনভাবে বাংলায় সদস্য সংখ্যা বৃদ্ধি শুরু করতে চলেছে বঙ্গ–বিজেপি। টেলিফোন এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় চলবে এই সদস্য সংগ্রহ অভিযান কর্মসূচি। জনসংযোগের লক্ষ্যে বাংলার বিভিন্ন প্রান্তে কেন্দ্রীয় নেতারা প্রচার চালাচ্ছেন। এবার আনা হচ্ছে কল সেন্টারও। সংগঠনকে চাঙ্গা করতে মানুষের মন পেতে বাংলায় এসে কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যাহ্নভোজ, প্রবাস কর্মসূচি, বুথ সশক্তিকরণ–সহ নানা কর্মসূচি চলছে৷ তার সঙ্গে যুক্ত হবে তথ্য প্রযুক্তি। এই নয়া মাধ্যমেও সাড়া পাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী গেরুয়া শিবির।

উল্লেখ্য, মিসড কল দিয়ে সদস্য সংগ্রহ করে বিশেষ লাভ হয়নি বিজেপির। বরং হতাশ হতে হয়েছে। এবার এই কল সেন্টারের মাধ্যমে সদস্য সংখ্যা কতটা বাড়বে তা নিয়েও সন্দেহে রয়েছেন আদি নেতারা। আর এই নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ওরা সদস্য বৃদ্ধির লক্ষ্যে যতই উদ্যোগী হোক না কেন বাংলার জনতা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গেই আছেম তা আবার প্রমাণ হবে।

বন্ধ করুন