বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > অক্সিজেন প্ল্যান্ট তৈরি করতে চায় রাজ্য, চিঠি লিখে প্রস্তাব পাঠাল কেন্দ্রের কাছে
অক্সিজেন প্ল্যান্ট তৈরি করতে চেয়ে কেন্দ্রকে চিঠি দিল বাংলা। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
অক্সিজেন প্ল্যান্ট তৈরি করতে চেয়ে কেন্দ্রকে চিঠি দিল বাংলা। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

অক্সিজেন প্ল্যান্ট তৈরি করতে চায় রাজ্য, চিঠি লিখে প্রস্তাব পাঠাল কেন্দ্রের কাছে

  • এই পরিস্থিতিতে আরও ৯৩টি অক্সিজেন প্ল্যান্ট তৈরি করতে চেয়ে কেন্দ্রকে চিঠি দিল বাংলা।

দেশজুড়ে অক্সিজেনের অভাব দেখা দিয়েছে। করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে কার্যত বেসামাল গোটা দেশ। বিভিন্ন রাজ্যেও হাহাকার শুরু হয়ে গিয়েছে। অক্সিজেনের অভাবে প্রাণ যাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। কেন্দ্রের কাছে চিঠি লিখে অক্সিজেন চাইছে একাধিক রাজ্য। এই পরিস্থিতিতে আরও ৯৩টি অক্সিজেন প্ল্যান্ট তৈরি করতে চেয়ে কেন্দ্রকে চিঠি দিল বাংলা। ইতিমধ্যেই ৫টি প্ল্যান্টের অনুমোদন দিয়েছে কেন্দ্র। পাইপলাইনের মাধ্যমে সব হাসপাতালে সরবরাহ করা হবে অক্সিজেন। রাজ্যে অক্সিজেনের কোনও অভাব নেই বলেই দাবি রাজ্যের।

জানা গিয়েছে, এই মুহূর্তে রাজ্যের ১১২টি কোভিড হাসপাতালে অক্সিজেন সরবরাহ করা হচ্ছে পাইপলাইনের মাধ্যমে। আর যে হাসপাতালগুলিতে নতুন করে কোভিড চিকিৎসার পরিকাঠামো গড়ে তোলা হবে, সেখানেও অক্সিজেন পাইপলাইনেই সরবরাহ করা হবে বলে খবর। প্রয়োজনে কয়েকটি হাসপাতালে সিলিন্ডারের মাধ্যমে তা সরবরাহ করা হবে। সূত্রের খবর, এখন বাংলায় রোজ ৪৯৭ মেট্রিক টন অক্সিজেন উৎপাদন হয়। এছাড়া ৩৮০ মেট্রিক টন বাইরে থেকে আসে। দিনে খরচ হয় ২২৩ মেট্রিক টন। সুতরাং খানিকটা উদ্বৃত্তই থেকে যায়। তাই হাসপাতাল–নার্সিংহোমে অক্সিজেনের কোনও অভাব এই মুহূর্তে নেই।

তাহলে অক্সিজেন প্ল্যান্ট তৈরির উদ্যোগ কেন?‌ জানা গিয়েছে, ভবিষ্যতের কথা ভেবেই নতুন করে অক্সিজেন প্ল্যান্ট তৈরির পরিকল্পনা করা হয়েছে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে বাংলাতেও। তাই পরিস্থিতি যদি খারাপের দিকে যায় তাহলে অক্সিজেনের চাহিদা বাড়তে পারে। সেক্ষেত্রে যাতে অন্যের মুখাপেক্ষী না হতে হয় তাই এই প্রস্তাব বলে খবর। সোমবার নির্বাচন থাকলেও নির্বাচন কমিশনের বিশেষ অনুমতি নিয়ে এদিন কোভিড সংক্রান্ত একটি বৈঠক করেছেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বন্ধ করুন