বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের ঋণ অনুমোদনের জন্য আগামীকাল রাজ্যজুড়ে বিশেষ শিবির করছে রাজ্য সরকার
স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের ঋণের অনুমোদনের জন্য বিশেষ শিবির করছে রাজ্য সরকার। (PTI)
স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের ঋণের অনুমোদনের জন্য বিশেষ শিবির করছে রাজ্য সরকার। (PTI)

স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের ঋণ অনুমোদনের জন্য আগামীকাল রাজ্যজুড়ে বিশেষ শিবির করছে রাজ্য সরকার

  • আজ রাজ্যজুড়ে বিশেষ শিবির চালু করেছে রাজ্য সরকার। সকাল ১১ টা থেকে বেলা ৩ টা পর্যন্ত এই শিবির চলবে বলে নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে। স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের ঋণ দেওয়া সংক্রান্ত বিষয় এই বিশেষ শিবিরের আয়োজন করা হয়েছে।

পড়ুয়াদের স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের সুবিধা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিল তৃণমূল। তৃতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর দিন কয়েক আগেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগামী বছরের ১ জানুয়ারি ১০ হাজারেরও বেশি পড়ুয়াকে স্টুডেন্ট কার্ডের সুবিধা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছিলেন। সেই কথা মাথায় রেখেই আজ রাজ্যজুড়ে বিশেষ শিবির চালু করেছে রাজ্য সরকার। সকাল ১১ টা থেকে বেলা ৩ টা পর্যন্ত এই শিবির চলবে বলে নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে।

স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের ঋণ দেওয়া সংক্রান্ত বিষয় এই বিশেষ শিবিরের আয়োজন করা হয়েছে। রাজ্য সরকার ঘোষণা করেছিল, রাজ্যের সমবায় ব্যাঙ্ক, রাজ্যের অনুমোদিত কেন্দ্রীয় এবং জেলা সমবায় ব্যাঙ্ক, রাষ্ট্রায়ত্ত ও বেসরকারি ব্যাঙ্কগুলি থেকে স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের সুবিধা পাওয়া যাবে। কিন্তু ,অনেক ক্ষেত্রে বিভিন্ন ব্যাঙ্কে ঋণ নিতে গিয়ে পড়ুয়াদের সমস্যায় পড়তে হচ্ছে বলে অভিযোগ পেয়েছে নবান্ন। বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন রাজ্যের মুখ্য সচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী। স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডে ঋণ দেওয়ার বিষয়ে তিনি শিক্ষা দপ্তরের আধিকারিক সমস্ত জেলা শাসক এবং ব্যাংক আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করেন বলে জানা গিয়েছে।

নবান্ন সূত্রে খবর, এই শিবির থেকে প্রায় পাঁচ হাজার পড়ুয়াকে স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। এর জন্য অনুমোদিত ঋণের পরিমাণ ধার্য করা হয়েছে ১০০ কোটি থেকে দেড়শ কোটি টাকা।

উল্লেখ্য, স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডে সর্বাধিক ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ পেতে পারেন পড়ুয়ারা। সর্বনিম্ন ৪ শতাংশ সুদের হারে পড়ুয়ারা এই ঋণের অর্থ মেটাতে পারবেন। তবে চার লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ এর ক্ষেত্রে ব্যাঙ্ককে এককালীন কোন টাকা পড়ুয়াদের দিতে হবে না। ১৫ বছরের মধ্যে এই টাকা মেটাতে হবে। ব্যাঙ্ক যাতে কোনোভাবেই অভিভাবকদের উপর চাপ দিতে না পারে বা অতিরিক্ত শর্ত আরোপ না করে সে বিষয়ে রাজ্য সরকার ব্যাঙ্কগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে।

বন্ধ করুন