বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > স্বাস্থ্যসাথী নিয়ে নজরদারি দল গঠন নবান্নের, একাধিক কড়া সিদ্ধান্তের পথে রাজ্য
স্বাস্থ্যসাথী কার্ড হাতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

স্বাস্থ্যসাথী নিয়ে নজরদারি দল গঠন নবান্নের, একাধিক কড়া সিদ্ধান্তের পথে রাজ্য

  • কোন কোন বেসরকারি হাসপাতাল বা নার্সিংহোমে পরিদর্শন করা হল, তা স্বাস্থ্যসাথীর পোর্টালে আপলোড করা হবে৷ এমনকী কোনও বেসরকারি হাসপাতাল বা নার্সিংহোম স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের মাধ্যমে চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে অনিচ্ছাপ্রকাশ করলে নজরদারি দল আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ করবে।

নবান্ন থেকে জেলা সফর—বারবার মুখ্যমন্ত্রীর মুখে শোনা গিয়েছে স্বাস্থ্যসাথীর কার্ডকে মান্যতা দিতে হবে বেসরকারি হাসপাতাল–নার্সিংহোমকে। সরকার এই বিষয়ে রাফ অ্যান্ড টাফ হবে। কিন্তু তারপরও নানা অভিযোগ আসতে শুরু করেছে। তাই এবার স্বাস্থ্যসাথী নিয়ে আরও কড়া মনোভাব নিচ্ছে রাজ্য সরকার৷ স্বাস্থ্যসাথীর সুবিধা মিলছে কি না, তা খতিয়ে দেখতে রাজ্য এবং জেলাস্তরে নজরদারি দল তৈরি করল রাজ্য সরকার৷

বিষয়টি ঠিক কী ঘটেছে?‌ নবান্ন সূত্রে খবর, স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের সুবিধা যাতে সবাই পায় তাই রাজ্যস্তরে হেলথ সার্ভিসেস–এর অধিকর্তাকে চেয়ারম্যান করে গঠন করা হল নজরদারি দল। প্রতিটি জেলাতে জেলার চিফ মেডিক্যাল অফিসারকে চেয়ারম্যান করে নজরদারি দল গঠন করা হয়েছে। এই নজরদারি দল প্রত্যেকটি হাসপাতালে ‘‌সারপ্রাইজ ভিজিট’‌ করবে।

তারপর কী করা হবে?‌ জানা গিয়েছে, কোন কোন বেসরকারি হাসপাতাল বা নার্সিংহোমে পরিদর্শন করা হল, তা স্বাস্থ্যসাথীর পোর্টালে আপলোড করা হবে৷ এমনকী কোনও বেসরকারি হাসপাতাল বা নার্সিংহোম স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের মাধ্যমে চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে অনিচ্ছাপ্রকাশ করলে নজরদারি দল আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ করবে।

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ সূত্রের খবর, প্রত্যেক মাসে অন্তত ৬টি বেসরকারি হাসপাতালে পরিদর্শন করতে হবে নজরদারি দলগুলিকে৷ কলকাতার মতো জেলাতেও স্বাস্থ্যসাথী কার্ডে চিকিৎসা পরিষেবা দিতে রাজি হয় না বহু নার্সিংহোম৷ সম্প্রতি স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্প নিয়ে মুখ্যসচিব এইচ কে দ্বিবেদী একটি উচ্চপর্যায়ের বৈঠক করেন৷ তারপরই এই নির্দেশিকা জারি করল নবান্ন৷

বন্ধ করুন