বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Fire tender: আগুন নেভানোর কাজে গতি আনতে ছোট দমকল ইঞ্জিন কিনবে রাজ্য সরকার

Fire tender: আগুন নেভানোর কাজে গতি আনতে ছোট দমকল ইঞ্জিন কিনবে রাজ্য সরকার

ছোট দমকল ইঞ্জিন কিনবে রাজ্য। প্রতীকী ছবি।

এই ছোট ইঞ্জিনের সাহায্যে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হবে বলে মনে করছেন দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু। চুঁচুড়ার তৃণমূল বিধায়ক তথা দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু বলেন, ‘কলকাতা-সহ জেলায় অনেক সরু গলি রয়েছে।'

কলকাতাসহ রাজ্যের বিভিন্ন শহরে আগুন লাগার ঘটনা প্রায়ই ঘটে থাকে। কিন্তু, অনেক ক্ষেত্রে সমস্যা দেখা দেয় দমকলের ইঞ্জিন প্রবেশ নিয়ে। সরু গলি বা সংকীর্ণ রাস্তা দিয়ে দমকলের ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে পৌঁছতে সমস্যা হয়। ততক্ষণে আগুন অনেকটা ছড়িয়ে পড়ে। তবে দ্রুত দমকলের ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে পৌঁছলে আগুন তাড়াতাড়ি নিয়ন্ত্রণে আসে। তাই এই সমস্যা সমাধানের জন্য এবার ছোট আকারের দমকলের ইঞ্জিন কেনার বিষয়ে উদ্যোগী হয়েছে রাজ্য সরকার।

এই ছোট ইঞ্জিনের সাহায্যে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হবে বলে মনে করছেন দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু। চুঁচুড়ার তৃণমূল বিধায়ক তথা দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু বলেন, ‘কলকাতা-সহ জেলায় অনেক সরু গলি রয়েছে। সেখানে দমকলের ইঞ্জিন প্রবেশ করানো সম্ভব হয় না। ফলে আগুন নেভাতে গিয়ে বেগ পেতে হয়। তাই আগুন নেভানোর সুবিধার্থে দমকলের ছোট ইঞ্জিন কেনা হবে। ছোট ইঞ্জিন কলকাতা-সহ রাজ্যের পুরনো শহরের সরু গলি বা রাস্তা দিয়ে অনায়াসে প্রবেশ করে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে পারবে।’

ইতিমধ্যেই সরু এবং সংকীর্ণ রাস্তা দিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নেভানোর জন্য মোটর সাইকেল ব্যবহার করেছে দমকল। অগ্নিনির্বাপণ সরঞ্জাম নিয়ে এই সমস্ত মোটরসাইকেল পৌঁছে যাচ্ছে ঘটনাস্থলে। তবে ছোট ইঞ্জিন আসলে সে ক্ষেত্রে আগুন নেভানোর কাজ আরও এক ধাপ এগিয়ে যাবে। দমকল মন্ত্রী আরও জানান, কালীঘাট এবং টালিগঞ্জের ফায়ার স্টেশন গুলিকে আরও উন্নত করা হবে। এছাড়াও রাজ্যে আরও কয়েকটি নতুন ফায়ার স্টেশন করা হবে। পাশাপাশি ১৫০০ দমকল কর্মী নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

বন্ধ করুন