বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > স্বাস্থ্যসাথী কার্ডে ‘অ্যাসিয়োরেন্স মোড’-এ সরকারি হাসপাতালরা টাকা পাবে না
স্বাস্থ্যসাথী কার্ড। ফাইল ছবি 

স্বাস্থ্যসাথী কার্ডে ‘অ্যাসিয়োরেন্স মোড’-এ সরকারি হাসপাতালরা টাকা পাবে না

  • জানা গিয়েছে, ২০২১-২২ অর্থবর্ষে কলকাতার বড় বড় সরকারি হাসপাতালগুলিতে ৩০ কোটি ২০ লক্ষ টাকা বকেয়া রয়েছে। রাজ্য স্বাস্থ্য অধিকর্তা সিদ্ধার্থ নিয়োগী এ বিষয়ে সমস্যা সমাধানের জন্য বলেন, সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা পরিষেবা বিনামূল্যে তাই সেখানে আলাদা করেছে রোগীদের জন্য খরচ দেওয়া হবে না।

স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়ে সমস্যায় পড়েছে সরকারি হাসপাতালগুলি। কারণ স্বাস্থ্যসাথী কার্ডে সরকারি হাসপাতালগুলিকে অ্যাসিয়োরেন্স মোডে টাকা দেওয়া বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। রাজ্যের বক্তব্য, সরকারি হাসপাতালে যেহেতু বিনামূল্যে চিকিৎসা করা হয়, তাই সরকারি হাসপাতালগুলিকে অ্যাসিয়োরেন্স মোডে টাকা দেওয়া হবে না। ফলে এই পরিস্থিতিতে সমস্যা দেখা দিতে পারে বলে মনে করছে বিভিন্ন সরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

সাধারণত স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পে হাসপাতালগুলিকে দু'ভাবে টাকা দেওয়া হয়ে থাকে। একটি হল ইন্সুরেন্স মোড এবং অন্যটি হল অ্যাসিয়োরেন্স মোড। ইন্সুরেন্স মোডে সরকার বিমা সংস্থাকে প্রিমিয়াম দেয় আর সেই বিমা সংস্থা হাসপাতালের চিকিৎসার টাকা মেটায়। অন্যদিকে, অ্যাসিয়োরেন্স মোডে রাজ্য সরকার সরাসরি হাসপাতালগুলিকে টাকা পাঠায়। কিন্তু, সেই মোডে সরকারি হাসপাতালগুলিকে টাকা দেওয়া হবে না বলে ঘোষণা করেছিল রাজ্য সরকার। রাজ্যের বক্তব্য, যেহেতু সরকারি হাসপাতালগুলিতে চিকিৎসা পরিষেবা বিনামূল্যে তাই আলাদাভাবে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড থাকা রোগীদের জন্য টাকা দেওয়া হবে না। তবে এ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তাদের বক্তব্য, সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা করতে গেলে অনেক সময় ওষুধ হাসপাতালে পাওয়া পাওয়া যায় না। ফলে সেগুলি বাইরে থেকে আনতে হয়। তাছাড়া, বিভিন্ন ধরনের টেস্ট এবং চিকিৎসা সামগ্রী বাইরে থেকে আনতে হয়। কিন্তু, রোগীদের স্বাস্থ্যসাথী কার্ড থাকলে সে ক্ষেত্রে তখন তারাই প্রশ্ন তুলবেন যে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড থাকা সত্ত্বেও কেন তাদের খরচ দিতে হচ্ছে? ফলে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড থাকা রোগীদের কাছ থেকে আলাদা করে খরচ নিতে গেলে সেক্ষেত্রে ঝামেলা তৈরি হতে পারে।

জানা গিয়েছে, ২০২১-২২ অর্থবর্ষে কলকাতার বড় বড় সরকারি হাসপাতালগুলিতে ৩০ কোটি ২০ লক্ষ টাকা বকেয়া রয়েছে। রাজ্য স্বাস্থ্য অধিকর্তা সিদ্ধার্থ নিয়োগী এ বিষয়ে সমস্যা সমাধানের জন্য বলেন, সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা পরিষেবা বিনামূল্যে তাই সেখানে আলাদা করেছে রোগীদের জন্য খরচ দেওয়া হবে না। যদি কোন রোগীর টেস্টের প্রয়োজন হয় তাহলে সেক্ষেত্রে তাকে এসএসকেএম-এ পাঠিয়ে দেওয়া যেতে পারে। তাছাড়া, অ্যাসিয়োরেন্স মোডের স্বাস্থ্য সাথী কার্ড থাকা রোগীদের যদি আলাদা করে পরীক্ষা করানো বা ওষুধের দরকার হয় সেক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট রোগীর স্বাস্থ্য সাথী কার্ড থেকে ইন্সুরেন্স মোডে টাকা কাটা যেতে পারে।

বন্ধ করুন