বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > হঠাৎ নবান্নে হাজির প্রশান্ত কিশোর, মমতা–অভিষেকের সঙ্গে করলেন একান্ত বৈঠক
প্রশান্ত কিশোরের সঙ্গে বৈঠক করলেন তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য সমীর জানা/হিন্দুস্তান টাইমস)
প্রশান্ত কিশোরের সঙ্গে বৈঠক করলেন তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য সমীর জানা/হিন্দুস্তান টাইমস)

হঠাৎ নবান্নে হাজির প্রশান্ত কিশোর, মমতা–অভিষেকের সঙ্গে করলেন একান্ত বৈঠক

  • সেখানেও তাঁর সঙ্গে ছিলেন প্রশান্ত কিশোর এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। কোনও গভীর আলোচনা চলছিল বলেই সূত্রের খবর।

আজ বাবুল সুপ্রিয়কে নিয়ে নবান্নে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে গিয়েছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু বাবুল বেরিয়ে চলে যেতেই সেখানে হঠাৎ উপস্থিত হন ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর। এমনকী মমতা এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে একান্ত বৈঠক পর্যন্ত করেন তিনি। হঠাৎ এই জরুরি বৈঠক কিসের? এই প্রশ্ন এখন ঘুরপাক খাচ্ছে নবান্ন জুড়ে।‌ কোনও প্রতিক্রিয়া না দিয়েই সটান নবান্ন থেকে বেরিয়ে ভবানীপুরের শীতলা মন্দিরে যান তৃণমূলনেত্রী। সেখানেও তাঁর সঙ্গে ছিলেন প্রশান্ত কিশোর এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। কোনও গভীর আলোচনা চলছিল বলেই সূত্রের খবর।

আজ বর্ষার দুপুরে নবান্নে এসেছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন ডেরেক ও ব্রায়েন। চারজনের একটি বৈঠক হয়। যেখানে প্রশান্ত কিশোর ছিলেন না। তারপর ডেরেকের বেরিয়ে যান বাবুল সুপ্রিয়। তার পরই নিজের ঘরে প্রশান্ত কিশোর এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী। সূত্রের খবর, বাবুল নাকি জানিয়েছেন আরও অনেকে আসতে চাইছেন। সেই তালিকার সঙ্গে অভিষেকের কাছে থাকা তালিকা মিলিয়ে নেওয়া হয়। এছাড়া ভবানীপুর উপনির্বাচনে বিজেপি যে গোপন ছক সাজিয়েছে আজ তাও বৈঠকে তুলে ধরেন প্রশান্ত কিশোর।

জানা গিয়েছে, ত্রিপুরা নিয়েও নাকি কথা হয়েছে। তাছাড়া ভবানীপুর নিয়ে প্রশান্ত কিশোর আশ্বস্ত করেছেন মুখ্যমন্ত্রীকে। সেখানের সমীক্ষাও তুলে ধরা হয়েছে। সূত্রের খবর, বাবুলের পর এখনই রাশ টানতে বলেছেন প্রশান্ত কিশোর। ৩০ সেপ্টেম্বর উপনির্বাচন মেটার পর এবং ফলাফল ঘোষণার পর বিষয়টি নিয়ে ভাবতে বলা হয়েছে। এখনই বেশি কাউকে নিতে না বলে পরামর্শ দিয়েছেন পিকে।

আবার ত্রিপুরার পাশাপাশি অসম–উত্তরপ্রদেশ নিয়েও কথা হয়েছে নবান্নে বলে জানা যাচ্ছে। ইডি–সিবিআই যেভাবে পিছনে লেগেছে সেটা কমব্যাট করা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। উপনির্বাচন মেটার পর মন্ত্রিসভায় রদবদল নিয়েও তাঁদের মধ্যে কথা হয়েছে। অনেকেই ভাবছিলেন রাজ্যসভার সাংসদ করা হবে বাবুল সুপ্রিয়কে। কিন্তু আজকের এই বৈঠক বলে দিচ্ছে তাঁকে রাজ্যের মন্ত্রীও করা হতে পারে। সেক্ষেত্রে বাবুলকে কোথাও থেকে জিতিয়ে আনা হবে বলে সূত্রের খবর।

বন্ধ করুন