বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > আমার রাজনৈতির শিক্ষাগুরু, সুব্রতদার বাড়ি যাব, আবেগপ্রবণ অর্জুন সিং
সুব্রত মুখোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্য টুইটার)
সুব্রত মুখোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্য টুইটার)

আমার রাজনৈতির শিক্ষাগুরু, সুব্রতদার বাড়ি যাব, আবেগপ্রবণ অর্জুন সিং

  • তাঁর সঙ্গে রাজনৈতিক সাহচর্য্য যাঁরা পেয়েছেন তাঁদের মনে ঘুরে ফিরে বার বারই আসছে সেই মানুষটার কথা। যাঁর নাম সুব্রত মুখোপাধ্যায়।

প্রয়াত হয়েছেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়। গোটা বাংলা জুড়ে শোকের ছায়া। যাবতীয় বিরোধ ভুলে সুব্রতর প্রয়াণে শোকবার্তা জানিয়েছেন বিরোধীরাও। এবার সুব্রতর মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণে আবেগ বিহ্বল হয়ে পড়লেন বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। পুরানো সেই দিনের কথাও মনে পড়ে যায় তাঁর। যখন তিনি তৃণমূলে ছিলেন। আসলে এক দীর্ঘ রাজনৈতিক যুগের অবসান হয়েছে সুব্রতর প্রয়াণে। তাঁর সঙ্গে রাজনৈতিক সাহচর্য্য যাঁরা পেয়েছেন তাঁদের মনে ঘুরে ফিরে বার বারই আসছে সেই মানুষটার কথা। যাঁর নাম সুব্রত মুখোপাধ্যায়।

 

সংবাদমাধ্য়মের কাছে স্মৃতি চারণার সময় বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং বলেন,সুব্রত মুখোপাধ্যায় আমার রাজনৈতিক জীবনের শিক্ষাগুরু ছিলেন। বাবার হাত ধরেই তাঁর সঙ্গে রাজনৈতিক পরিচয়। দলের মধ্যে বাধা সত্ত্বেও জীবনের প্রথম কাউন্সিলর টিকিট সুব্রত দাই আমাকে দিয়েছিলেন। সেই রাজনৈতিক শিক্ষাগুরুর প্রয়াণে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন এক সময়ের সহযোদ্ধা অর্জুন সিং। অর্জুন সিং বলেন, খুব উদার মানসিকতার ছিলেন তিনি। আমি সুব্রতদার বাড়ি যাব। এখন আমার উল্টো রাজনৈতিক মেরুর হলেও সৌজন্যতা ভুলতেন না তিনি। 

 

প্রিয়-সোমেন, সুব্রত। প্রথম দুজন ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন আগেই। এবার চলে গেলেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়ও। এক মহীরুহের পতন। দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবন। সুব্রত প্রয়াণে চোখে জল এসেছে অনেকেই। স্মৃতির সাগরে ডুব দিয়েছেন অনেকেই। সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে জড়িয়ে থাকা নানা স্মৃতি রোমন্থন করেছেন তাঁরা। সেই স্মৃতি তর্পণের শরিক বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংও। 

 

বন্ধ করুন