বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Sukanta Majumder Attacks Abhishek: ‘আগামী দিনে অভিষেক ট্রিগার হ্যাপি পুলিশ নামালে চুপ থাকব না’, হুঁশিয়ারি সুকান্তর
সুকান্ত মজুমদার

Sukanta Majumder Attacks Abhishek: ‘আগামী দিনে অভিষেক ট্রিগার হ্যাপি পুলিশ নামালে চুপ থাকব না’, হুঁশিয়ারি সুকান্তর

  • সাংবাদিক সম্মেলনে সুকান্ত বলেন, 'বাংলার যুবরাজের মুখে শোনা গেলো পুলিশ শান্ত ছিল। কিন্তু এই পুলিশ নিরস্ত্র বিজেপি কর্মীদের মেরেছে। মহিলাদের গায়ে হাত তুলেছে পুরুষ পুলিশকর্মীরা।'

নবান্ন অভিযানের দিন জখম এসিপিকে দেখতে গিয়ে এসএসকেএম-এ বিজেপিকে তোপ দেগেছিলেন অভিষেক। বলেছিলেন, ‘আমি সেখানে থাকলে কপালে গুলি করতাম।’ অভিষেকের এই মন্তব্যকে হাতিয়ার করেই পালটা তোপ দাগলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। গতকাল সাংবাদিক সম্মেলনে সুকান্ত বলেন, ‘বাংলার যুবরাজের মুখে শোনা গেলো পুলিশ শান্ত ছিল। কিন্তু এই পুলিশ নিরস্ত্র বিজেপি কর্মীদের মেরেছে। মহিলাদের গায়ে হাত তুলেছে পুরুষ পুলিশকর্মীরা। পুলিশ কমিশনার বলছেন, পুলিশের আবার মহিলা বা পুরুষ কিসের। ১২ তারিখ থেকে পুলিশের সাহায্যে বিজেপি কর্মীদের আসতে দেওয়া হয়নি। পুলিশ কোন আইন মেনে নবান্ন অভিযানের দিন এই সব কাজ করল?’

সুকান্ত বলেন, ‘অভিষেক যেভাবে বিরোধী দলনেতাকে নিয়ে অরুচিকর কথা বলেছেন তা বাংলার সংস্কৃতির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। আগামী দিন যে কি ভয়াবহ হতে চলেছে তার জানান দিচ্ছে এই উক্তি। অভিষেক আগামী দিনে রাজ্যকে ট্রিগার হ্যাপি পুলিশ উপহার দিতে চলেছেন। যে পুলিশ আহত হয়েছেন তাঁর জন্য আমরা মর্মাহত। তবে আমরা আগেই আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলাম যে তৃণমূল আমাদের মধ্যে নিজেদের লোক ঢুকিয়ে এই রকম করবে।’ 

বিজেপির রাজ্য সভাপতি আরও বলেন, ‘তৃণমূলের মুখে অহিংসার বাণী মানায় না। গত কয়েক দিন আগে কোচবিহার জেলার এক কর্মী ২ বছর পরে বাড়ি এসেও রেহাই পাননি। আগামী দিনে অভিষেক রাস্তায় ট্রিগার হ্যাপি পুলিশ নামালে আমরা চুপ থাকব না। কালী পুজোর পর বিজেপি জেলায় জেলায় জেল ভরো আন্দোলন শুরু করব।’ সুকান্তবাবু আরও বলেন, ‘অভিষেক বলেছেন ওনার জায়গায় আমি থাকলে কপালে গুলি করতে বলতাম। পাশাপাশি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন পুলিশ চাইলেই গুলি চালাতে পারত।’ এই ইস্যুতে আদালতে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

বন্ধ করুন